দোহা: ইসলামি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনকে মদত দেওয়ার অভিযোগে কাতারের সঙ্গে সমস্ত রকম সম্পর্ক ছিন্ন করল পারস্য উপসাগরীয় চারটি দেশ। এর ফলে তেলের দাম বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সোমবার সকালে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা ঘোষণা করে বাহরেন, মিশর, সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহি। তাদের অভিযোগ, সব থেকে পুরনো সন্ত্রাসবাদী সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডকে তলে তলে মদত দিচ্ছে কাতার। প্রাকৃতিক গ্যাসে ভরপুর এই দেশেরই ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজন করার কথা। চার দেশের এই সিদ্ধান্ত যে কাতারের কাছে একটা বিরাট ধাক্কা, তা বলাই বাহুল্য।

এই চার দেশের পাশাপাশি কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে গৃহযুদ্ধে বিধ্বস্ত ইয়েমেনের আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত সরকারও। তবে ইয়েমেনের অভিযোগ ভিন্ন। তাদের অভিযোগ, ইরানের হৌথি জঙ্গিগোষ্ঠীকে মদত দিচ্ছে কাতার।

সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা জানানোর সময়ে চারটে দেশই বলেছে, কাতারের সঙ্গে বিমান এবং জল পরিবহণ পরিষেবা বন্ধ করার ব্যাপারেও চিন্তাভাবনা শুরু করেছে তারা। তবে পরিষেবা বন্ধ হলে, কাতার এয়ারওয়েজের ওপর তার কী প্রভাব পড়বে তা এখনও জানা যায়নি। কাতারের সঙ্গে এই চারটে দেশের সম্পর্ক এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে গত মাসের শেষ দিকেই কাতারের সংবাদ চ্যানেল আল-জাজিরার সম্প্রসার বন্ধ করে দিয়েছে এই চারটে দেশ।

অন্য দিকে কাতারে বিমান পরিষেবা বন্ধ করার কথা ঘোষণা করে দিয়েছে আমিরশাহির রাষ্ট্রীয় বিমান পরিবহণ সংস্থা এতিহাদ। তাদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার স্থানীয় সময়ে ভোর ২:৪৫-এ কাতারের উদ্দেশে তাদের শেষ বিমানটি রওনা দেবে।

কাতারের সঙ্গে চার দেশের সম্পর্ক ছিন্ন করার ফলে তেলের দাম বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ব্যারেলপ্রতি এক শতাংশ দাম বেড়েছে তেলের। সোমবার সকালে অপরিশোধিত তেলের দাম ছিল ব্যারেল প্রতি ৫০.২৯ ডলার। এই মুহূর্তে পরিস্থিতি খুব একটা জটিল না হলেও যদি আরব দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও টালমাটাল হয়, তা হলে তেলের দামে প্রভাব পড়বে, এমনই মত এক তেল বিশেষজ্ঞের।

প্রভাব পড়েছে শেয়ার দরেও। সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণার পরেই কাতারে প্রায় সাত শতাংশ পড়েছে শেয়ারের দাম। অন্য দিকে দুবাইয়ে শেয়ারের দাম পড়েছে ১.৭ শতাংশ, সৌদি আরবে পড়েছে ০.৮ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here