প্যারিস: জিতে গেলেন মধ্যপন্থী এমানুয়েল ম্যাকরঁ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র  আর গ্রেট ব্রিটেনের মতো দক্ষিণপন্থী পপুলারিজমের পথে হাঁটল না ফ্রান্স। হেরে গেলেন কট্টর দক্ষিণপন্থী ন্যাশনাল ফ্রন্টের নেত্রী মেরিন লে পেন এবং তিনি হার স্বীকারও করে নিয়েছেন।

বুথফেরত সমীক্ষার হিসাবে দেখা যাচ্ছে, ম্যাকরঁ বিপুল ভোটে হারিয়েছেন লে পেনকে। তাঁর ঝুলিতে ভোট পড়েছে ৬৫.৫ শতাংশ আর লে পেনের ঝুলিতে ৩৪.৫ শতাংশ। দ্বিতীয় দফা ভোটের আগে সংবাদমাধ্যম বিভিন্ন জনমত সমীক্ষায় ম্যাকরেঁর জয়ের ব্যবধানের যে হিসাব দিয়েছিল, ম্যাকরঁ তার চেয়েও ২ শতাংশ বেশি ভোট পেয়েছেন। ৩৯ বছরের ম্যাকরঁই হলেন পঞ্চম রিপাবলিকের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট।

ম্যাকরেঁর জয় ইউরোপের রাজনৈতিক প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থায় একটা বড়ো স্বস্তি এনে দিল। আশঙ্কা ছিল, মহাদেশীয় সংহতি গড়ে তোলার ব্যাপারে ইউরোপে যে প্রচেষ্টা চলছে, লে পেনের জয় তাকে উলটো খাতে টেনে নিয়ে যাবে। শেষ পর্যন্ত সেই আশঙ্কা থেকে বাঁচলেন ফ্রান্স তথা ইউরোপের মানুষজন।

রবিবার গভীর রাতেও ম্যাকরেঁর সমর্থকরা সেন্ট্রাল প্যারিসে ল্যুভরের সামনে পতাকা হাতে উল্লাস করছেন। ম্যাকরঁ সংবাদ সংস্থা এএফপি-কে বলেছেন, দেশের দীর্ঘ ইতিহাসে ‘নতুন অধ্যায়’ শুরু হল। আর লে পেন বলেছেন, ফ্রান্স ধারাবাহিকতাই বজায় রাখল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here