Connect with us

বিদেশ

এভারেস্টের আবহাওয়ায় কী ভাবে প্রভাব ফেলল ফণী?

ওয়েবডেস্ক: ঘূর্ণিঝড় ফণীর পরোক্ষ প্রভাব এসেছে নেপালে। আর তাতে তছনছ হয়ে গিয়েছে এভারেস্ট-সহ বিভিন্ন পর্বতের বেসক্যাম্প। বেশি প্রভাব অবশ্য এভারেস্ট বেসক্যাম্পেই পড়েছে। তীব্র হাওয়ার দাপটে উড়ে গিয়েছে কুড়িটা তাঁবু।

ঝোড়ো হাওয়ায় কোথাও টেন্টের পোল ভেঙেছে, কোথাও আবার তুষারধসে তলিয়ে গিয়েছে ফিক্সড রোপের একাংশ। এভারেস্ট বা অন্য সব পর্বত অভিযানে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের পুরোনো সব হিসেব বানচাল। হিমালয়ে আট হাজারী শৃঙ্গ অভিযানে যাওয়া বাঙালি পর্বতারোহীরা সেখানে বসে হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন ঘূর্ণিঝড় ফণীর দাপট।

কিন্তু অনেকেই ভাবতে পারেন, ফণীর গতিপথে কোনো ভাবেই নেপাল ছিল না, তা হলে তার প্রভাব সেখানে পড়ল কী করে?

আরও পড়ুন জলবায়ু পরিবর্তনের জের, ৫০ বছরেই বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার

এই ব্যাপারটির ব্যাখ্যা করেছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। তাঁর কথায়, ফণী যখন ওড়িশা দিয়ে ঢুকে স্থলভাগ দিয়ে বাংলার দিকে এগোচ্ছে, তখনই সেখান থেকে জলীয় বাষ্প ভরা বাতাস সোজা আঘাত হানে নেপাল হিমালয়ে। রবীন্দ্রবাবুর কথায়, “জলীয় বাষ্প ভরা বাতাস নেপালের ওপর দিয়ে যেতে গিয়ে বিশাল পাহাড়শ্রেণিতে ধাক্কা খায়। সেখানে জলীয় বাষ্পের চাপ ধরে রাখতে না পেরে ভেঙে পড়ে এভারেস্ট সংলগ্ন এলাকায়।” এর ফলে তীব্র হাওয়া এবং তুষারপাত হয়েছে এই অঞ্চলে।

তবে এটা নতুন নয়। এর আগেও একই কারণে একই ঘটনা ঘটেছিল এবং সেটা ছিল আরও বেশি মারাত্মক। ২০১৪ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমে তাণ্ডব চালিয়েছিল ঘূর্ণিঝড় হুডহুড। তার প্রভাবেই ঠিক একই কারণে প্রবল তুষারধস হয় নেপালে। সেই দুর্যোগ এতটাই প্রবল ছিল, তার প্রভাবে বিভিন্ন দেশের ২১ জন পর্বতারোহী-সহ ৪৩ জনের মৃত্যু হয়।

বিদেশ

প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিনের প্রতিক্রিয়া

কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সীমান্ত উত্তেজনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাল চিন

ওয়েবডেস্ক: ভারত-চিন সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যেই শুক্রবার লাদাখ সফর করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সীমান্ত উত্তেজনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাল চিন।

চিনের বিদেশমন্ত্রক জানায়, “উত্তেজনা কমানোর জন্য” ভারতের সঙ্গে আলোচনা চলছে। একই সঙ্গে বলা হয়েছে, পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটাতে পারে এমন কোনো পদক্ষেপ উভয় পক্ষের তরফেই নেওয়া উচিত নয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ন বলেন, “ভারত ও চিন সামরিক ও কূটনৈতিক চ্যানেলের মাধ্যমে উত্তেজনা হ্রাস করার বিষয়ে যোগাযোগ এবং আলোচনা চালাচ্ছে। এই মুহূর্তে পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটাতে পারে এমন কোনো পদক্ষেপে কোনো পক্ষেরই জড়ানো উচিত নয়”।


চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত (Bipin Rawat) এবং সেনাপ্রধান এমএম নরবনেকে (MM Narvane) সঙ্গে নিয়ে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ লেহ-তে পৌঁছোন প্রধানমন্ত্রী। ১১ হাজার ফুট উঁচুতে অবস্থিত নিমু চেকপোস্টে হাজির হন তাঁরা। সেখানে স্থল, জল ও বায়ুসেনার জওয়ানদের মনোবল বাড়াতে তাঁদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেন। ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (ITBP) আধিকারিকরাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

সফরের নেপথ্যে

গত কয়েক মাস ধারেই পূর্ব লাদাখের একাধিক অঞ্চলে ভারত-চিন সেনার বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ লেগে রয়েছে। গত ১৫ জুন গলওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার অতর্কিত আক্রমণে নিহত হন এক কর্নেল-সহ ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। সেই ঘটনার পর সীমান্ত উত্তেজনা কমাতে দু’পক্ষই আলোচনায় বসলেও কোনো সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসেনি।

এহেন পরিস্থিতিতে এ দিন লাদাখ সফরের পূর্বনির্ধারিত সূচি ছিল প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সেই সফর স্থগিত হয়ে যায়। পরিবর্তে প্রধানমন্ত্রী লাদাখের উদ্দেশে যাত্রা করেন আজ ভোরে।

Continue Reading

বিদেশ

কোভিড ১৯ নিয়ে হচ্ছে পার্টি, চলছে জুয়া, আমেরিকার আলবামায়

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কত বিচিত্র এই মানুষ! করোনাভাইরাসকে (coronavirus) কেন্দ্র করে পার্টি। আর সেখান থেকে জুয়া জেতার ব্যবস্থা। অদ্ভুত শোনাচ্ছে না? বিস্মিত হওয়ার কিছু নেই। এ রকমটাই ঘটছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের (USA) আলবামায় (Albama)। স্থানীয় আধিকারিকরা ঘটনাটিকে প্রথমে গুজব বলে উড়িয়ে দিলেও এখন নিজেরাই বলছে, বাস্তবে এই ঘটনা ঘটছে।

আলবামার টুসকালুসায় (Tuscaloosa) কোভিড ১৯ (Covid 19) পার্টির আয়োজন করছেন যুবক-যুবতীরা। পার্টিতে যোগ দেওয়া সুস্থ মানুষজন যাতে করোনায় সংক্রমিত হতে পারেন তার জন্য করোনা সংক্রমিতদের ডেকে আনা হচ্ছে। সিটি কাউন্সিলের সদস্য ম্যাকিন্সট্রি সংবাদ মাধ্যম সিএনএন-কে এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, দমকলের অফিসারদের কাছ থেকে তিনি এই পার্টির বিষয়ে জানতে পেরেছেন।

তিনি বলেন, “প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম এটা গুজব। তার পর আমরা এটা নিয়ে নানা অনুসন্ধান করি। শুধু যে ডাক্তারদের অফিস এই ঘটনা স্বীকার করেছে তা-ই নয়, সংশ্লিষ্ট রাজ্যের অফিস জানিয়েছে, তারাও ব্যাপারটা জানতে পেরেছেন।”

ম্যাকিন্সট্রি বলেন, এ সপ্তাহে সিটি কাউন্সিলে এক প্রেজেন্টেশনের সময় দমকল প্রধান র‍্যান্ডি স্মিথও বলেন, শহরের যুবক-যুবতীরা এ রকম পার্টি দিচ্ছেন। যিনি প্রথম করোনা-আক্রান্ত হচ্ছেন, তাঁকে নগদ অর্থ দেওয়া হচ্ছে।

ভাইরাসের সান্নিধ্যে এসে যিনি প্রথম করোনা-আক্রান্ত হয়েছেন বলে ডাক্তাররা বলছেন তাঁকে টিকিট বিক্রি করে পাওয়া অর্থ থেকে নগদ দেওয়া হচ্ছে। গত কয়েক সপ্তাহে শহরে ও তার আশেপাশের এলাকায় এ রকম বেশ কয়েকটা পার্টি হয়েছে। এবং এ ধরনের পার্টির সংখ্যাটা অফিসাররা যতটুকু জানেন, তার চেয়ে অনেক বেশি বলে মন্তব্য করেন ম্যাকিন্সট্রি।

ম্যাকিন্সট্রি বলেন, “এ সব শুনে তো প্রচণ্ড খেপে গিয়েছিলাম। যে ব্যপারটা এত সিরিয়াস, সেই ব্যাপারটা নিয়ে এ রকম ছেলেখেলা। এটা শুধু দায়িত্বজ্ঞানহীনতারই পরিচয় নয়, তুমি হয়তো শরীরে ভাইরাস নিয়ে বাড়ি যাবে যেখানে তোমার বাবা-মা বা দাদু-দিদা রয়েছেন।”

এ ধরনের পার্টি ভেঙে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সিটি কাউন্সিল। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে এ সপ্তাহেই অর্ডিনান্স জারি করা হয়েছে। এই অর্ডিনান্স সোমবার থেকে কার্যকর হয়েছে।

আলবামার স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে সিএনএন যোগাযোগ করেছিল। তাদের সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত এখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯০০০ জন এবং এঁদের মধ্যে মারা গিয়েছেন ১ হাজার জন।

Continue Reading

বিদেশ

২০৩৬ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট থাকছেন ভ্লাদিমির পুতিন!

vladimir putin

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রাশিয়ার (Russia) সংবিধান সংশোধন নিয়ে আয়োজিত গণভোটে বিপুল পরিমাণে জয় পেয়েছেন ভ্লাদিমির পুতিন (Vladimir Putin)। এর ফলে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট পদে থেকে যেতে পারেন তিনি।

রাশিয়ার সংবিধান অনুযায়ী টানা দু’টি দফায় প্রেসিডেন্ট থাকার ফলে ২০২৪-এ আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়াতে পারতেন না তিনি। কিন্তু পুতিন সম্ভবত অত সহজে গদি ছাড়তে রাজি নন। আর সে কারণেই সংবিধানে সংশোধনী নিয়ে এসে গণভোটের আয়োজন করেন তিনি।

রাশিয়ার ৯৯.৯ শতাংশ ভোটার এই গণভোটে অংশ নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। এর মধ্যে ৭০ শতাংশ ভোট গিয়েছে পুতিনের পক্ষে, অর্থাৎ সংবিধান সংশোধনীর পক্ষে। যদিও ভোটে চূড়ান্ত কারচুপি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন রাশিয়ার সব থেকে জনপ্রিয় বিরোধী নেতা অ্যালেক্সেই নাভালনি।

এই জয়ের ফলে ২০২৪-এর পর ফের দু’ দফায় প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়তে পারবেন তিনি। মানে চাইলে তিনি ২০৩৬ সাল পর্যন্ত মসনদে বসে থাকতে পারেন। পুতিনের বয়স বর্তমানে ৬৭। ২০৩৬ সালে বয়স হবে ৮৩।

দুই দশক ধরে প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকায় থেকেছেন পুতিন। এ নিয়ে চার মেয়াদে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন। প্রথম দুই মেয়াদে ২০০০ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত আট বছর প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি। এর পরের চার বছর, অর্থাৎ ২০০৮ থেকে ২০১২ পর্যন্ত রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হন তিনি।

২০১২ সালের ফের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন তিনি। সেই সঙ্গে সংবিধান সংশোধন করে পার্লামেন্টের মেয়াদ ৬ বছর করেন। ২০২৪ সালে তার চতুর্থ দফার মেয়াদ শেষ হবে। বোঝাই যাচ্ছে পুতিনের আরও ক্ষমতায় থাকার ইচ্ছে। আর সে এ কারণেই এই গণভোট।

Continue Reading
Advertisement
gst
শিল্প-বাণিজ্য33 mins ago

জিএসটি-তে বড়োসড়ো স্বস্তি, কমল জরিমানা

দেশ56 mins ago

এক মাসে ভারত-বাংলাদেশ পণ্যবাহী শতাধিক ট্রেন চলেছে

thunderstorm
রাজ্য1 hour ago

কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে সন্ধ্যার মধ্যে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা

বিদেশ1 hour ago

প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিনের প্রতিক্রিয়া

দেশ2 hours ago

কোভিড-১৯: হোম আইসোলেশনের নতুন নিয়ম জারি করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক

দেশ3 hours ago

চ্যাংরাবান্ধা দিয়ে শুরু হল ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য

দেশ5 hours ago

আচমকা লাদাখ সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, সেনার সঙ্গে বৈঠক

দেশ5 hours ago

১৫ আগস্টের মধ্যেই বাজারে চলে আসতে পারে ভারতের প্রথম করোনা-প্রতিষেধক ‘কোভ্যাক্সিন’

দেশ6 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২০,৯০৩, সুস্থ ২০,০৩২

ক্রিকেট2 days ago

আইসিসির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর, এ বার কি সৌরভ?

DIY
ঘরদোর3 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

ক্রিকেট3 days ago

বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে আসন্ন টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে থাকছে ‘ব্ল্যাক লাইভ্‌স ম্যাটার’

বিজ্ঞান2 days ago

কোভাক্সিন কী? জেনে নিন বিস্তারিত

LPG
শিল্প-বাণিজ্য2 days ago

পর পর দু’মাস বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম

দেশ2 days ago

ভারতে রোগীবৃদ্ধির হার কমল অনেকটাই, সুস্থতার হার ৬০ শতাংশের কাছাকাছি

ক্রিকেট2 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ কাণ্ড: ফাইনালে খেলা ক্রিকেটারকে জিজ্ঞাসাবাদ শ্রীলঙ্কা পুলিশের

নজরে