“আমরা বেশ মিলেমিশে থাকতে পারি”, এমা থমসনকে বলেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

0
903

লস অ্যাঞ্জেলেস: ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁকে এক বার ডিনারে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন, এমনকি যে কোনো ট্রাম্প টাওয়ারে তাঁকে থাকার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এই গোপন কথা ফাঁস করে দিয়ে হলিউডের অভিনেত্রী এমা থমসন মজা করে বললেন, সেই সময়ে তিনি বোধহয় একটা ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচক এম্মা। 

সুইডিশ সংবাদমাধ্যম এসভিটি-র সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ‘লাভ অ্যাকচুয়্যালি’র তারকা তাঁর এই উপাখ্যান এই ভাবে শুরু করলেন —  “নব্বইয়ের দশকের শেষ দিকের কথা। অভিনেতা কেনেথ ব্র্যানাঘের সঙ্গে সদ্য ছাড়াছাড়ি হয়েছে। জন ট্রাভোল্টার সঙ্গে ‘প্রাইমারি কালার্স’-এর শ্যুটিং চলছে। সেই সময়ে আমার ট্রেলারে এক দিন একটা ফোন এল। ফোনটার দিকে তাকালাম, কেমন একটা অদ্ভুত শব্দ করছে। যেন একটা মুজ (উত্তর আমেরিকার এক ধরনের হরিণ) ঢুকেছে। আমি ফোনটা তুললাম। ‘হাই, ডোনাল্ড ট্রাম্প বলছি।’ আমি বললাম, ‘তাই? কী করতে পারি আপনার জন্য।’ উনি বললেন, ‘আমি যদি আপনাকে আমার কোনো একটা ট্রাম্প টাওয়ারে থাকার প্রস্তাব দিই? খুব আরামদায়ক কিন্তু।’

৫৭ বছরের অভিনেত্রী, অধুনা ব্রিটিশ অভিনেতা-প্রযোজক গ্রেগ ওয়াইসের স্ত্রী এমা বললেন, “আমি প্রথমে খুব বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছিলাম। পরে বুঝলাম ট্রাম্পের আসল উদ্দেশ্য কী। জানতে চাইলাম, কেন তিনি আমাকে কোথাও একটা থাকার প্রস্তাব দিচ্ছেন? ট্রাম্প জবাব দিলেন, ‘কেন? জানেন, আমার মনে হয়, আমরা বেশ ভালো ভাবে মিলেমিশে থাকতে পারি। কোনো এক দিন এক সঙ্গে ডিনারেও যেতে পারি।”

‘সেভিং মিঃ ব্যাঙ্কস’-এর অভিনেত্রী স্বীকার করলেন প্রথমটা তিনি থতমত খেয়ে গিয়েছিলেন। তার পর বললেন, “আচ্ছা, ঠিক আছে, পরে জানাব। প্রস্তাবের জন্য ধন্যবাদ’ বলে ফোনটা রেখে দিলাম।”

এমা থমসনের অনুষ্ঠান যিনি হোস্ট করছিলেন, তিনিও যেন অভিনেত্রীর গোপন খবরে কিছুক্ষণ আচ্ছন্ন হয়ে গিয়েছিলেন। পরে বলে উঠলেন, “আপনি তা হলে ফার্স্ট লেডি হতে পারতেন।”       

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here