Kim Jong Un

সেওল: গত বছর দুই দেশের মধ্যে সংঘাত চরমে পৌঁছেছিল। সেই উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে সন্ধির যথেষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। এই প্রথম দক্ষিণ কোরিয়া সফরে যাচ্ছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক পরিবারের সদস্য।

শীতকালীন অলিম্পিক উপলক্ষে শুক্রবার দক্ষিণ কোরিয়ায় পা রাখবেন উত্তরের শাসক কিম জন উনের বোন কিম ইয়ো-জন। এই সফরে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জা-ইনের সঙ্গে দেখা করতে পারেন বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল। দক্ষিণের প্রেসিডেন্টের হাতে তাঁর ভাইয়ের একটি চিঠিও দেবেন কিম ইয়ো-জন। মুন-জা-ইনের প্রতি কিমের শুভেচ্ছাবার্তা দেওয়া থাকবে ওই চিঠিতে।

সেওলের ‘নর্থ কোরিয়া স্টাডিজ ইউনিভার্সিটি’-এর অধ্যাপক ইয়াং মো-জিন বলেন, “এটা একটা ঐতিহাসিক ঘটনা হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। কারণ এই প্রথম উত্তর কোরিয়ার শাসক পরিবারের কোনো সদস্য দক্ষিণে পা রাখবে।”

উল্লেখ্য, গত বছর দু’দেশের মধ্যে সংঘাত চরমে পৌঁছেছিল। শুধু দু’দেশই নয়, সংঘাত চরমে গিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র এবং উত্তর কোরিয়ার মধ্যে। উত্তরের বারবার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছিল। পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়েছিল যে মনে হচ্ছিল তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ আর সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু সেখান থেকে হঠাৎ করে পরিস্থিতি পালটাতে শুরু করে। এর নেপথ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় আয়োজিত শীতকালীন অলিম্পিক।

আরও পড়ুন: দ্বন্দ্ব ভুলে দুই কোরিয়াকে আবার এক হওয়ার ডাক পিয়ংইয়ঙের

এই অলিম্পিকের কথা মাথায় রেখে ক্রমশ কমতে থাকতে উত্তেজনা। দু’দেশের প্রতিনিধিদলের বৈঠকও হয়। ঠিক হয় এই অলিম্পিকে একই পতাকার তলায় মার্চ করবে দুই কোরিয়ার ক্রীড়াবিদরা। অন্য দিকে ২৭ বছরে এই প্রথম বার কোরিয়ার দু’প্রান্তের খেলোয়াড়দের নিয়েই তৈরি হবে মহিলা আইস হকি দল।

কিছু দিন আগেই দুই কোরিয়াকে আবার এক হওয়ার বার্তা দিয়েছিলেন কিম। সেই বার্তায় নতুন মাত্রা যোগ করল তাঁর বোনের এই সফর। যুদ্ধের পরিস্থিতি ছেড়ে দুই কোরিয়া আবার এক হয় কি না এখন সেটাই দেখার।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন