লম্বা হলে খুব ভালো আর খাটো হলে সব গেল। কিন্তু এই লম্বা হওয়া আর খাটো হওয়ার ফান্ডাটা কি আর মানুষের নিজের হাতে ? তা যদি থাকত তা  হলে তো পৃথিবী জুড়ে সবাই এক ধার থেকে লম্বাই হত। কেউ কি আর বেঁটে থাকত ? এই সবই নির্ভর করে জিনগত, জাতিগত, বংশগত ব্যাপার-স্যাপারের ওপর। এই লম্বা-বেঁটে মানুষদের নিয়েই একটি সমীক্ষা রিপোর্ট রেরোয় জুলাই-এর ২৩ তারিখে। পৃথিবীর ২০০টি দেশকে নিয়ে এই সমীক্ষাটি করা হয়। দেশগুলোর পুরুষ ও মহিলাদের গড় উচ্চতার ওপর বিচার করে ১ থেকে ২০০ অবধি দেশের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়। সেই তালিকাতেই ছেলেদের উচ্চতা অনুযায়ী ভারতের স্থান হয়েছে ১৭৮ নম্বরে, আর মেয়েদের উচ্চতা অনুযায়ী ১৯২তম নম্বরে।

সমীক্ষা বলছে, বিগত শতাব্দীগুলোর তুলনায় ভারতীয়রা বর্তমান সময়ে অনেক ধীর গতিতে লম্বা হচ্ছে। তাই উচ্চতার লড়াইয়ে ভারত অনেক পিছিয়ে। মোট ২০০টি দেশ নিয়ে করা এই সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে ভারতীয় পুরুষদের গড় উচ্চতা ১৬৪.৯ সেন্টিমিটারের মধ্যে আটকে থাকছে। যেখানে নেদারল্যান্ডের ছেলেদের উচ্চতা হল গড়ে ১৮২.৫ সেন্টিমিটার। এই বিশাল উচ্চতা নিয়ে নেদারল্যান্ড প্রথমে স্থান পেয়েছে। এর পর তালিকায় দ্বিতীয়তে রয়েছে বেলজিয়াম (১৮১.৭ সেমি), তৃতীয় ইস্টোনিয়া (১৮১.৬ সেমি), চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে দু’টি দেশ — লাটভিয়া (১৮১.৪ সেমি ) ও ডেনমার্ক (১৮১.৪ সেমি)।

এ বার তালিকার নীচের দিকে অর্থাৎ খাটো মানুষের দেশ হিসেবে যাদের নাম রয়েছে তাদের মধ্যে শেষ পাঁচটি দেশ হল যথাক্রমে, ২০০তম টিমোর লেস্তে (১৫৯.৮ সেমি), ১৯৯-এ ইয়েমেন (১৫৯.৯ সেমি), ১৯৮-এ লাও পিডিআর (১৬০.৫ সেমি), তার আগে মাদাগাস্কার (১৬১.৫ সেমি) এবং তার আগে মালয় (১৬২.২ সেমি)।

আবার ভারতীয় মহিলাদের গড় উচ্চতা ১৫২.৬ সেমি, ফলে ভারতের স্থান ১৯২তম। সেই জায়গায় মেয়েদের গড় উচ্চতার দৌড়ে দীর্ঘতম নারীদের দেশ হিসেবে প্রথম ৫টি হল লাটভিয়া (১৬৯.৮ সেমি), নেদারল্যান্ড (১৬৮.৭ সেমি, এর পর যথাক্রমে ইস্তোনিয়া, চেক রিপাবলিক ও সার্বিয়া।

মেয়েদের কম-উচ্চতা বিশিষ্ট দেশ হিসেবে সব শেষে যে সব দেশের নাম রয়েছে , সে রকম ৫টি দেশের মধ্যে রয়েছে ২০০তম গুয়াতেলামা (১৪৯.৪ সেমি) অর্থাৎ সব থেকে কম উচ্চতার মেয়েরা রয়েছেন এই দেশে। এর আগে যথাক্রমে রয়েছে ফিলিপিনস, বাংলাদেশ, নেপাল ও টিমোর লেস্তি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here