রাষ্ট্রপুঞ্জের মঞ্চ থেকে ভুল তথ্য ছড়াচ্ছেন ইমরান খান, কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব ভারতের

0

“যে দেশ ওসামা বিন লাদেনকে শহিদের তকমা দেয়, তারা নিজেদের সন্ত্রাসবাদের শিকার বলে দাবি করছে”।

নিউইয়র্ক: রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদে (UNGA) কাশ্মীর নিয়ে মিথ্যা প্রচারের জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে (Imran Khan) উপযুক্ত জবাব দিল ভারত।

ইমরানের বক্তব্যে ‘রাইট টু রিপ্লাই’ ব্যবহার করে ভারত বলেছে, “পাক প্রধানমন্ত্রী আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে বিশ্বব্যাপী মঞ্চের অপব্যবহার করছেন। জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল, ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল, আছে এবং থাকবে। এর মধ্যে সেই এলাকাগুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে, যেখানে পাকিস্তানের অবৈধ দখলদারি রয়েছে। আমরা অবিলম্বে পাকিস্তানকে তার অবৈধ দখলের সমস্ত এলাকা খালি করার আহ্বান জানাচ্ছি”।

ইউএনজিএ -তে ভারতের ফার্স্ট সেক্রেটারি স্নেহা দুবে বলেন, “এর আগেও আমার দেশের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বিদ্বেষপূর্ণ প্রচারের জন্য রাষ্ট্রপুঞ্জের দেওয়া ফোরামের অপব্যবহার করেছেন এবং তাঁর দেশের করুণ অবস্থা দেখে ক্ষুব্ধ হয়েছেন পাকিস্তানের নেতা। এ ভাবে বিশ্বের মনোযোগ অন্য দিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা বৃথা”।

Shyamsundar

তিনি বলেন, “প্রতিবেশীদের ক্ষতি করার জন্য পাকিস্তান তাদের দেশে জঙ্গিদের প্রতিপালন করে। পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদীরা অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে, যখন সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের হামলার শিকার হতে হচ্ছে”।

তিনি আরও বলেন, “সদস্য দেশগুলো ভালো করেই জানে, সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয়, সাহায্য এবং সক্রিয় ভাবে সমর্থন করার ইতিহাস রয়েছে পাকিস্তানের। এটা এমন একটা দেশ, যাদের রাষ্ট্রীয় নীতি-ই হল বিশ্বব্যাপী জঙ্গিদের সমর্থন, প্রশিক্ষণ, অর্থায়ন এবং অস্ত্রের জোগান দেওয়া। এর পাশাপাশি, রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদ যে সব সন্ত্রাসবাদীদের নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে, তাদের আশ্রয় দেওয়ার বিপজ্জনক রেকর্ডও রয়েছে পাকিস্তানের দখলে”।

রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ অধিবেশনে বক্তৃতা করার সময় ইমরান খান আবারও কাশ্মীর নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন। ভারতের সঙ্গে শান্তি চান বলে উল্লেখ করে ইমরান বলেন, “দক্ষিণ এশিয়ায় স্থায়ী শান্তি জম্মু ও কাশ্মীর সংঘাতের সমাধানের উপর নির্ভর করছে। এই সংঘাত মেটানোর দায় ভারতের”।

পাল্টা বিবৃতিতে স্নেহা দুবে বলেন, দু:খের বিষয়, “আজও আমরা শুনি পাকিস্তানের নেতা সন্ত্রাসকে স্বীকৃতি দেওয়ার চেষ্টা করছেন। সন্ত্রাসবাদের এই ধরনের চিন্তা আধুনিক বিশ্বে গ্রহণযোগ্য নয়”। পাকিস্তান নিজেকে সন্ত্রাসবাদের শিকার বলে বর্ণনা করার বিষয়ে তিনি বলেন, “এটা এমন একটা দেশ, যে নিজেকে আগুন নেভানোর যোগ্য হিসেবে দাবি করে নিজেই আগুন লাগাচ্ছে। যারা ওমামা বিন লাদেনকে শহিদের মর্যাদা দেয়, তারা আবার নিজেদের সন্ত্রাসের শিকার বলে দাবি করে!”

আরও পড়ুন: ৩০ হাজারের নীচে নামল দৈনিক সংক্রমণ, বাড়ল সক্রিয় রোগী

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন