Imran-Khan
ইমরান খান। ছবি: স্কাই নিউজ থেকে

ওয়েবডেস্ক: আগামী ১১ আগস্ট পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীপদে শপথ নিতে চলেছেন ইমরান খান। ওই অনুষ্ঠানে তাঁর দল পাকিস্তান তেরহিক-ই-ইনসাফ নেতৃত্ব ভারত থেকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার সুনীল গাভাসকর, কপিল দেব, নভজ্যোত সিং সিধু এবং বলিউড অভিনেতা আমির খানকে।

তবে প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ওই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান আমন্ত্রণ জানানো হবে কি না, সে বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনো কিছু জানানো হয়নি।

গত ২৫ জুলাই পাকিস্তানের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। পর দিন থেকেই ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর দেখা যায়, সামন্য ব্যবধানের জন্য নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারেনি পিটিআই। আপাতত কয়েকটি নির্দল এবং অপেক্ষাকৃত ছোটো দলের সমর্থন নিয়ে সরকার গড়তে বদ্ধপরিকর পিটিআই। দলের তরফে জানানো হয়েছে, সরকার গড়ার জন্য প্রয়োজনীয় ১৩৭টি আসন তারা ইতিমধ্যেই জোগাড় করে ফেলেছে। এবং সঙ্গে এ কথাও জানানো হয়েছে, প্রাথমিক ভাবে স্থির হয়েছে আগামী ১১ আগস্ট পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন দেশের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক। কিন্তু ওই শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে সাউথ এশিয়ান অ্যাসোসিয়েশন ফর রিজিওনাল কো-অপারেশন বা সার্ক অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানদের আমন্ত্রণ জানানো নিয়ে ধন্ধে পড়েছে ইমরানের দল।

জানা গিয়েছে, সার্কের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানদের আমন্ত্রণ জানাতে হলে সেই তালিকায় রাখতে হবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও। সে দেশের সাধারণ মানুষ থেকে সেনা বাহিনী এই বিষয়টিকে কী চোখে দেখবে, সেই বিষয়টিও গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছে দল।

এর উপর রয়েছে ইমরানকে মোদীর টেলিফোন। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পর মোদী ইমরানকে ফোন করে শুভেচ্ছা জানান। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে ভারতের প্রতি সৌজন্যতা ফিরিয়ে না দিলে সেটা যে, বিশ্বজনীন দৃষ্টিকটু বিষয় হয়ে দাঁড়াবে সেটাও ভাবাচ্ছে পিটিআই-কে। দলের তরফে জানানো হয়েছে, থুব শীঘ্রই আমন্ত্রিতদের তালিকা চুড়ান্ত করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন