বেশ কয়েকজন ভারতীয়-সহ ব্রিটিশ জাহাজ আটক ইরানে

0

তেহরান: ক্রমশ জটিল হচ্ছে উপসাগরীয় অঞ্চলের পরিস্থিতি। এ বার একটি ব্রিটিশ পতাকাবাহী জাহাজকে আটক করেছে ইরান। ওই জাহাজের নাবিকদের মধ্যে বেশ কয়েক জন ভারতীয় রয়েছেন বলে খবর।

বেসরকারি ওই পণ্যবাহী জাহাজটি চালায় স্টেনা বাল্ক নামক একটি সংস্থা। তারা জানিয়েছে, শুক্রবার ওই জাহাজটিকে আটক করা হয়েছে। স্টেনা বাল্কের তরফ থেকে একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “এখনও পর্যন্ত কোনো নাবিকের কোনো রকম আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ার খবর নেই।” নাবিকদের নিরাপত্তার ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছে ওই সংস্থা। নাবিকরা ভারত, রাশিয়া, লাটভিয়া এবং ফিলিপিন্সের বাসিন্দা।

আন্তর্জাতিক সমুদ্র আইন লঙ্ঘনের দায়ে ব্রিটিশ তেলবাহী জাহাজটি আটকে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করছে ইরান। তবে সব নিয়ম মেনেই জাহাজটি এ পথ দিয়ে যাচ্ছিল বলে পালটা দাবি করেছে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। উল্লেখ্য, যথারীতি জাহাজটিকে আটক করা হয়েছে সেই হরুমুজ প্রণালীতেই।

এর ফলে বর্তমানের উত্তেজক পরিস্থিতি আরও বেড়ে গিয়েছে। জাহাজটি না ছাড়লে এর জন্যে ইরানকে কঠোর ফল ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিট্রিশ বিদেশ সচিব জেরেমি হান্ট। তিনি বলেন, “ব্রিটিশ জাহাজ আটকে দেওয়া কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। জাহাজ চলাচলের আন্তর্জাতিক স্বাধীনতা ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। অতি দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করা উচিত।”

আরও পড়ুন আবার জোরালো ভূমিকম্প অরুণাচলে, বড়ো কিছুর ইঙ্গিত নয় তো?

তবে শুধু এ জাহাজই নয়, যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে ওই ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর হরমুজ প্রণালীতে ব্রিটিশ মালিকানাধীন লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী ‘এমভি মাসদার’ নামে আরও একটি জাহাজ আটকে দেওয়ার ঘটনা ঘটে। যদিও পরে সেটিকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

গত কয়েক মাস ধরেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরানের মধ্যে সম্পর্ক এক্কেবারে তলানিতে এসে ঠেকেছে। দু’দেশের মধ্যে প্রায় যুদ্ধ লেগে যাচ্ছিল, শেষ মুহূর্তে সেটা থামিয়ে দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু উত্তেজনা প্রশমিত হওয়ার কোনো লক্ষ্মণ নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here