লন্ডন: লন্ডনের টিউব ট্রেনে বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করল ইসলামিক স্টেট (আইএস)। পাশাপাশি জঙ্গি আক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের বিপদের মাত্রাকে ‘সংকটজনক’ ঘোষণা করল ব্রিটেন। এ দিকে দুষ্কৃতীর খোঁজে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে ব্রিটিশ পুলিশ।

নিজেদের সংবাদসংস্থা ‘আমাক নিউজ’-এর মাধ্যমে এই দায় স্বীকারের বার্তা দেয় ইসলামিক স্টেট। যদিও বিশেষজ্ঞদের দাবি, বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্যও অনেক সময় এ রকম ভাবে দায় স্বীকার করে আইএস।

শুক্রবার লন্ডনের টিউব ট্রেনে বিস্ফোরণে আহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯। এই নিয়ে গত ছ’মাসে পাঁচ বার জঙ্গি হামলা হল লন্ডনে। তার পরিপ্রেক্ষিতেই বিপদের মাত্রাকে ‘সংকটজনক’ করেছে ব্রিটেন। এমনই ঘোষণা করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে। ‘সংকটজনক’ আখ্যা দেওয়ার অর্থ, কিছু দিনের মধ্যেই ফের জঙ্গি হামলার শিকার হতে পারে ব্রিটেন।

এই বিস্ফোরণে জড়িত সন্দেহে এখনও কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। যদিও ব্রিটিশ পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী শাখার প্রধান মার্ক রাউলির দাবি, তদন্ত খুব দ্রুত এগোচ্ছে। তাঁর কথায়, “আমরা সন্দেহভাজনের খোঁজে তল্লাশি শুরু করছি।” তাঁর মতে ওই বিস্ফোরকের তাপ থেকেই বেশির ভাগ মানুষ আহত হয়েছেন। বাকিরা আহত হয়েছেন হুড়োহুড়ি করে ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে।

প্রথমে একটি বিশাল শব্দ শুনতে পান ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চার্লি ক্রাভেন। তাঁর কথায়, “আমার মনে হল কমলা রঙের আগুনের একটি গোলা আমার দিকে ধেয়ে আসছে।”

ট্রাম্পকে পাত্তা দিলেন না মে

ঘটনার পরেই টুইটারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, হামলাকারীর সন্ধান পেয়ে গিয়েছে ব্রিটিশ পুলিশ। যদিও ব্রিটিশ পুলিশ ট্রাম্পের কথাকে পাত্তা দেয়নি। পাত্তা দেননি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীও।

ট্রাম্পের কথার পরিপ্রেক্ষিতে মে বলেন, “তদন্ত যখন চলছে, তখন সেই ব্যাপারে কারও মন্তব্য করা উচিত নয়। এ দিকে এই জঙ্গি হামলার পরেই ব্রিটেনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করা হয়েছে। দেশের সব গুরুত্বপূর্ণ জায়গা এবং রেল স্টেশনে নিরাপত্তার জন্য এক হাজার বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করেছে ব্রিটেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here