thomas markle

ওয়েবডেস্ক: সাধারণের সংসার আর রাজপরিবারের নিয়ম-কানুনের মধ্যে যে অনেকটা তফাত থাকে, জানা কথাই! এটাও অনুমান করে নিতে অসুবিধে হয় না, একবার বিয়ে ভাঙা এক মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে রাজপরিবারের বধূ হলে আদবকায়দায় ঠাসা নতুন জীবন মানিয়ে নিতে কতটা সমস্যায় পড়তে হতে পারে তাঁকে!

meghan markle and princeharry

তা বলে মানসিক অত্যাচার? প্রিন্স হ্যারির ব্রিটিশ রাজপরিবার ছুতোয়-নাতায় হেনস্তা করছে সাসেক্সের ডাচেস মেগান মার্কলেকে?

আরও পড়ুন: রাজবধূর ‘শাস্তি’, এই কাজগুলো আর কোনোদিন করতে পারবেন না মেগান

thomas markle

শুনতে অবাক লাগলেও সম্প্রতি ঠিক তেমন দাবিই তুলেছেন মেগানের বাবা থমাস মার্কলে। জোর গলায় বলছে তিনি- মেগান রীতি মতো আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। সুখে তো নেই বটেই, পাশাপাশি হেনস্তার ছাপ বিয়ের কয়েক দিনের মধ্যেই পড়ে গিয়েছে চোখে-মুখে।

meghan markle

“আমি এই ভয় ওর চোখে দেখেছি, মুখে দেখেছি, হাসিতে দেখেছি। আমার মনে হচ্ছে- মেগান খুবই ভয়ে ভয়ে রয়েছে, একেবারেই সুখে নেই”, বলছেন থমাস। কিন্তু ডাচেসকে এই যে এত অনুষ্ঠানে দেখা যাচ্ছে হাসিমুখে?

meghan markle

“আমি সেই ছোটোবেলা থেকে মেগানকে হাসতে দেখেছি! কী বলছেন, আমি আমার মেয়ের হাসি চিনি না? আপনারা যেটা দেখছেন, সেটা স্রেফ জোর করে ধরে রাখা একটা কষ্টের হাসি”, জানাচ্ছেন থমাস। পাশাপাশি এটাও জানাতে ভুলছেন না, তাঁকে এখন যোগাযোগও করতে দেওয়া হয় না মেগানের সঙ্গে!

meghan markle and princeharry

“মেগানের ফোন নম্বরটাও বদলে দিয়েছে রাজপরিবার। আমি ওর পুরনো নম্বরে ফোন করেছিলাম, লাইন পাইনি! ওর সঙ্গে যোগাযোগের কোনো উপায়ই তো দেখছি না”, দাবি বাবার!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here