টোকিও: জাপানের কান্টো প্রদেশের ইরুমা শহরের পুরপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন তোমোয়া হোসোদা। ২২টি আসনের মধ্যে ২১টিতেই জয়ী হয়েছেন এই ২৫ বছরের যুবক। মাত্র ২ বছর আগে ২০১৫ সালে লিঙ্গ পরিবর্তন করে পুরুষ হয়েছেন তোমোয়া। সঙ্গে পালটেছেন নিজের নামও। জাপানই হল পৃথিবীর প্রথম কোনো দেশ, যারা একজন রূপান্তরিত পুরুষকে তাঁদের জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করল।

আরও পড়ুন: দুনিয়ায় প্রথম, একটি নদীকে মানুষের আইনি মর্যাদা দিল নিউজিল্যান্ড

নির্বাচিত হয়ে তোমোয়া বলেছেন, তিনি যে শুধুই সমকামী, উভকামী, রূপান্তরকামী ও বিচিত্রকামী(Queer Sexual)-দের অধিকার নিয়েই লড়াই করে যেতে চান, তা নয়। শারীরিক ভাবে অক্ষম এবং প্রবীণদের অধিকার নিয়েও লড়বেন তিনি। তার জন্য তিনি এমন একটা ব্যবস্থা তৈরি করতে চান, যা বৈচিত্র্যকে জায়গা দেবে এবং সংখ্যালঘুদের সাহায্য করবে।


নিউজিল্যান্ডের জিওর্জিনা বেয়ের পৃথিবীর প্রথম রূপান্তরিত নারী, যিনি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। ১৯৯৫ সালে তিনি কারটেরটন জেলার মেয়র হন। পরবর্তীকালে তিনি সে দেশের সাংসদও হয়েছিলেন।


“কিছুদিন আগে অবধিও মানুষ এমন ভাব করত, যেন যৌন সংখ্যালঘুদের অস্তিত্বই নেই। আমাদের এখনও বহু বাধা পেরোতে হবে। কিন্তু আমি আশাবাদী, সকলের আশা পূর্ণ করতে পারব”, বলেছেন হোসোদা।

হোসোদা জাপানের দ্বিতীয় রূপান্তরিত রাজনীতিক, যিনি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলেন। এর আগে ২০০৩ সালে টোকিও পুরসভার প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছিলেন রূপান্তরিত নারী কামিকাওয়া আয়া। 

হোসোদা পৃথিবীর প্রথম রূপান্তরিত পুরুষ জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলেও, পৃথিবী জুড়ে রূপান্তরিত নারীদের রাজনীতিতে অংশগ্রহণের ইতিহাস কয়েক দশকের পুরোনো।

নিউজিল্যান্ডের জিওর্জিনা বেয়ের পৃথিবীর প্রথম রূপান্তরিত নারী, যিনি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হন। ১৯৯৫ সালে তিনি কারটেরটন জেলার মেয়র হন। পরবর্তীকালে তিনি সে দেশের সাংসদও হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: বারবার ফেল: বাবাকে ১৭ লক্ষ টাকা ফেরত দেবে মেয়ে, রায় আদালতের

নিউজিল্যান্ডের পর কিউবা, ফিলিপাইনস, চিলে, আমেরিকার টেক্সাসেও রূপান্তরিত মহিলারা জনপ্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন