খবরঅনলাইন ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের (United States) ৪৬তম প্রেসিডেন্ট (46th President) হয়ে ঐক্যের ডাক দিলেন জো বাইডেন (Joe Biden)। মার্কিন সমাজে যে গভীর বিভাজন সৃষ্টি হয়েছে তাতে সেতু রচনা করা এবং অভ্যন্তরীণ উগ্রপন্থাকে পরাস্ত করার প্রতিশ্রুতি দিলেন তিনি।

হিমশীতল ঠান্ডার মধ্যেই বুধবারের সকালটা ছিল রোদ ঝলমলে। এই আবহাওয়ার মধ্যেই ক্যাপিটল বিল্ডিং-এ (Capitol Building) চলল নতুন প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টের শপথগ্রহণ পর্ব। ৬ জানুয়ারি এই ক্যাপিটল বিল্ডিং-এই হামলা চালিয়েছিল এক উন্মত্ত জনতা। উদ্দেশ্য ছিল, বাইডেনের জয়কে বানচাল করে দেওয়া।

প্রথমে শপথ নেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস (Kamala Harris)। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তিনিই হলেন প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট। কমলার পরে শপথ নেন বাইডেন। অত্যন্ত কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং কোভিড ১৯ অতিমারির কারণে ক্যাপিটল বিল্ডিং-এর ন্যাশনাল ম্যল ছিল কার্যত ফাঁকা।

প্রেসিডেন্ট হিসাবে প্রথম ভাষণ

তাঁর শপথ অনুষ্ঠানের পরে ন্যাশনাল ম্যলে বাইডেন বলেন, “গণতন্ত্র মহামূল্যবান, গণতন্ত্র ভঙ্গুর, এবং এই সময়ে, বন্ধুগণ, গণতন্ত্রেরই জয় হয়েছে।”

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “এখন লাল লড়ছে নীলের বিরুদ্ধে, গ্রামের সঙ্গে শহরের লড়াই হচ্ছে, চরমপন্থীদের সঙ্গে লড়াই চলছে উদারপন্থীদের। এই অশোভন যুদ্ধের অবসান ঘটাতে হবে। আমাদের হৃদয়কে কঠোর না করে আমরা যদি আমাদের অন্তরের মহত্বকে মেলে ধরি, আমরা যদি একটু সহনশীলতা দেখাই আর নিজেকে যদি অন্যের জায়গায় বসিয়ে সব কিছু বোঝার চেষ্টা করি, তা হলেই এই কাজ আমরা করতে পারব।”

“সবাই মিলে আমরা আমেরিকার একটা কাহিনি লিখব, যে কাহিনি হবে আশার, ভয়ের নয়, যে কাহিনি হবে ঐক্যের, বিভাজনের নয়, যে কাহিনি হবে আলোর, অন্ধকারের নয়। শোভনতা ও মর্যাদা, ভালোবাসা, আরোগ্য আর দয়ার কাহিনি”, বলেন নতুন প্রেসিডেন্ট।

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশের ১৫২ বছরের ঐতিহ্য ভেঙে তাঁর উত্তরাধিকারের অভিষেক অনুষ্ঠানে গরহাজির থাকলেন। তিনি তাঁর চার বছরের রাজত্বকালে মার্কিন সমাজে গভীর মেরুকরণের সৃষ্টি করেছেন। ট্রাম্পের সমর্থকদের প্রতিও আবেদন জানালেন জো বাইডেন। প্রতিশ্রুতি দিলেন, তিনি সব পক্ষের কথা শুনবেন। বললেন, “আমি সব আমেরিকানের প্রেসিডেন্ট হব।”

বয়োজ্যেষ্ঠ প্রেসিডেন্ট

৭৮ বছরের জো বাইডেন হলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বয়োজ্যেষ্ঠ প্রেসিডেন্ট এবং দ্বিতীয় রোমান ক্যাথলিক প্রেসিডেন্ট।

বারাক ওবামার সময়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন ১৯৮৭ সালেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে ছিলেন।  

ভারতীয় ও জ্যামাইকান অভিবাসীর কন্যা কমলা হ্যারিস হলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সর্বোচ্চ পদাধিকারী প্রথম মহিলা এবং দেশের ‘নাম্বার টু’ হিসাবে প্রথম অশ্বেতাঙ্গ। তাঁকে এবং তাঁর স্বামী ডাউগ এমহফকে (আমেরিকার প্রথম ‘সেকেন্ড জেন্টলম্যান’) এসকর্ট করে শপথ অনুষ্ঠানে নিয়ে আসেন কৃষাঙ্গ পুলিশ অফিসার ইউজিন গুডম্যান।

শপথ অনুষ্ঠান

বুধবার সকালে শপথ অনুষ্ঠানে বোমা নিয়ে হামলা হতে পারে বলে সুপ্রিম কোর্ট সতর্ক করেছিল। তাই সেন্ট্রাল ওয়াশিংটন এ দিন যেন এক সেনাশিবিরের চেহারা নিয়েছিল। ন্যাশনাল গার্ডের ২৫ হাজার রক্ষীকে মোতায়েন করা হয়েছিল। কোভিড অতিমারির জন্য ন্যাশনাল ম্যলে সাধারণ মানুষের কার্যত প্রবেশাধিকার ছিল না। তার পরিবর্তে গোটা ম্যল জুড়ে দু’ লক্ষ পতাকা পোঁতা হয়েছিল।

ট্রাম্পের চার বছরের শাসনে যাঁদের দেখা যায়নি সেই মার্কিন তারকারা এ দিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। লেডি গাগা গাইলেন জাতীয় সংগীত। এ দিন সন্ধ্যায় নতুন প্রেসিডেন্টের টিভি অনুষ্ঠান করার জন্য উপস্থিত ছিলেন টম হ্যাঙ্কস। জেনিফার লোপেজ গাইলেন ‘দিস ল্যান্ড ইজ ইওর ল্যান্ড’। এই গানটিকে আমেরিকার ‘আনঅফিসিয়াল’ জাতীয় সংগীত হিসাবে গণ্য করা হয়।

প্রেসিডেন্ট হয়েই প্রথম কাজ

মার্কিন প্রশাসনিক আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে অবিলম্বে প্রবেশ করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। শুধু তা-ই নয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়াও আটকে দেবেন তিনি।

এ ছাড়াও কোভিড ১৯ মোকাবিলা, অভিবাসন, পরিবেশ এবং অর্থনীতিতে নতুন পথ দেখাবেন নতুন প্রেসিডেন্ট।

কোভিড ঠেকাতে টিকাকরণ কর্মসূচি অনেক বেশি প্রসারিত করার শপথ নিয়েছেন জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, “রাজনীতিকে দূরে সরিয়ে এক রাষ্ট্র হিসাবে অতিমারির মোকাবিলা করব আমরা।”

মুসলিম অধ্যুষিত বিভিন্ন দেশ থেকে মানুষের আগমনের উপরে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প তা রদ করবেন বাইডেন। পাশাপাশি অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে ট্রাম্পের নির্দেশে মেক্সিকো সীমান্তে  প্রাচীর তোলার যে কাজ চলছে তা-ও থামিয়ে দেবেন বাইডেন।

আরও পড়ুন: অফিসে শেষ দিনে ডোনাল্ড ট্রাম্প বললেন, “বাইডেনের সাফল্যের জন্য প্রার্থনা করুন”                       

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন