মামলা দায়ের করা হল হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০১২ সালে লিবিয়ায় মার্কিন কনসুলেটে হামলায় দুই সেনার মৃত্যুর জন্য তিনিই দায়ী।

লিবিয়ার বেনগাজিতে মার্কিন কনসুলেটে হামলা চালায় আইএস জঙ্গি গোষ্ঠী। সেই হামলায় রাষ্ট্রদূত ক্রিস্টোফার স্টিভেন্স ছাড়া নিহত হন শন স্মিথ ও টায়রন উডস দুই সেনা অফিসার। সেই সময় ক্লিনটন বিদেশমন্ত্রী ছিলেন।

ক্লিনটনের বিরুদ্ধে নিহত দুই সেনার পরিবারের হয়ে ফ্রিডম ওয়াচ গ্রুপ নামে একটি রক্ষণশীল গোষ্ঠী মামলা করেছে। দুই পরিবারের বক্তব্য, ক্লিনটন তাঁর নিজের ই-মেল ব্যবহার করে রাষ্ট্রের গোপন তথ্য আদান-প্রদান করেন। যার ফলে সেনাকর্তাদের অবস্থান ফাঁস হয়ে যায় এবং হামলায় তাঁরা প্রাণ হারান। তাঁদের আরও অভিযোগ, বেনগাজির কনসুলেটে হামলা নিয়ে ক্লিনটন মানহানিকর মন্তব্যও করেছেন।

হিলারি ক্লিনটনের ই-মেল হ্যাক হয়ে থাকতে পারে বলে জুলাই মাসে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই-এর প্রধান জেমস কমি আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। এর ভিত্তিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি বলেছে, হিলারি কোনও কূটনৈতিক নিয়ম লঙ্ঘন করেননি। ও দিকে হামলায় নিহত রাষ্ট্রদূত ক্রিস্টোফার স্টিভেন্সের বোন অ্যান স্টিভেন্সও একটি সাক্ষাৎকারে হিলারি ক্লিনটনের হয়ে কথা বলেছেন।

তবে স্বাভাবিক ভাবেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মুখে হিলারির বিরুদ্ধে এই অভিযোগ একটা ইস্যু হয়ে উঠেছে এবং নির্বাচনী প্রচারে তার প্রভাব পড়ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here