trump kim

ওয়েবডেস্ক: দুই কোরিয়ার সীমান্তের ‘ডিমিলিটারাইজ্‌ড জোনে’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারে রাজি হয়েছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জিং উন। এমনই জানা গিয়েছে সংবাদমাধ্যম সিএনএন সূত্রে।

এপ্রিলের শেষেই ঐতিহাসিক সাক্ষাতে মিলিত হয়েছিলেন দুই কোরিয়ার শাসক। কিমের দক্ষিণ কোরিয়ায় পা রাখার ঐতিহাসিক মুহূর্তটি কার্যত গোটা বিশ্বই দেখেছে। সেই বৈঠকে কোরিয়ার যুদ্ধ সরকারি ভাবে শেষ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছিলেন উত্তরের কিম এবং দক্ষিণের প্রেসিডেন্ট মুন জা ইন। সূত্রের খবর, ওই বৈঠকেই ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করার ব্যাপারে কিমকে প্রস্তাব দেন মুন।

সূত্রের খবর, দুই কোরিয়ার সীমান্তে পানমুনজম গ্রামে এই বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা ক্রমশ বাড়ছে। সীমান্তের উত্তরেও কিছু অনুষ্ঠান আয়োজন করা হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। মে’এর শেষে দিকেই এই বৈঠক হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

কিম-ট্রাম্পের বৈঠক অবশ্য চমকপ্রদ কোনো খবর নয়। কারণ কিম-মুনের সাক্ষাতের পর থেকেই এই বৈঠকেরও একটা তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছে। দুই শাসকের বৈঠকের ওপরে নজর রেখেছিলেন ট্রাম্পও। বৈঠকের পরে দুই কোরিয়াকেই অভিনন্দন জানান ট্রাম্প। সেই সঙ্গে সীমান্তের গ্রামেই বৈঠকের কথা বলেন তিনি।

তবে মার্কিন প্রশাসনের কর্তাদের একাংশ সিঙ্গাপুরে এই বৈঠক আয়োজন করার পক্ষপাতী। কেউ কেউ আবার মোঙ্গোলিয়ার রাজধানী উলানবাটোরে এই বৈঠক আয়োজন করার ব্যাপারে মত প্রকাশ করেছে।

তবে বৈঠক যেখানেই হোক, দীর্ঘ সময়ের উত্তেজনা কমিয়ে কয়েক মাসের মধ্যেই যে আরও একটি ঐতিহাসিক বৈঠক বিশ্ব দেখতে চলেছে সেটা বলাই বাহুল্য।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here