বিজ্ঞানীদের কথা শুনুন, সত্যি কিছু ব্যবস্থা নিন: মার্কিন কংগ্রেসে গ্রেটা থুনবার্গ

0
Greta Thunberg in US Congress
মার্কিন কংগ্রেসে গ্রেটা। ছবি সৌজন্যে দ্য স্ট্রেটস্‌ টাইমস।

ওয়েবডেস্ক: জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে আলোচনার সময়ে মার্কিন কংগ্রেসে হাজির হলেন সুইডিশ ‘ক্লাইমেট কিড’ গ্রেটা থুনবার্গ। আমেরিকায় আসার পর থেকেই খুব ব্যস্ততায় কাটছে থুনবার্গের। আগের দিনই প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে দেখা করেন তিনি।

আরও পড়ুন: ভয়াবহ পরিস্থিতি! ইতিহাসের উষ্ণতম গ্রীষ্ম উত্তর গোলার্ধে

জলবায়ু নিয়ে বিশ্ব জুড়ে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের যে আন্দোলন চলছে, ১৬ বছরের গ্রেটা তার পথিকৃৎ। বুধবার মার্কিন কংগ্রেসে হাজির হয়ে গ্রেটা বলেন, তাঁর নিজের বিশেষ কিছু বলার নেই। তিনি শুধু তাঁর বক্তব্যের সমর্থনে প্রমাণ পেশ করবেন। আর সেই প্রমাণ হল বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে ‘ইন্টারগভর্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ’-এর বিশেষ রিপোর্ট, সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে শিল্পায়নের আগে বিশ্বের তাপমাত্রা যা ছিল এখন তার চেয়ে ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়েছে।

গ্রেটা বলেন, “আমার বক্তব্যের সমর্থনে আমি এই প্রমাণ পেশ করছি। কারণ আমি চাই না আপনারা আমার কথা শুনুন, আমি চাই আপনারা বিজ্ঞানীদের কথা শুনুন।”

ষোড়শী গ্রেটা আরও বলেন, “আমি চাই আপনারা বিজ্ঞানের পিছনে ঐক্যবদ্ধ হোন। তার পর আমি চাই আপনারা সত্যিকারের কিছু ব্যবস্থা নিন।” খুব ছোট্ট বক্তৃতা, তবে খুব কড়া বক্তৃতা।

তবে গ্রেটা এ রকমই। যা দেখেন, তা-ই বলেন। যা সঠিক বলে জানেন, তাই বলেন। জলবায়ু সংক্রান্ত বিষয় সকলের নজরে আনার জন্য যেটা করা উচিত, সেটাই করেন। সুইডেন থেকে আমেরিকায় তিনি বিমানে উড়ে আসেননি। তাঁর উদ্দেশ্য ছিল কার্বন ও অন্যান্য ক্ষতিকর গ্যাস নিঃসরণ কমানো। আটলান্টিকের বুকে পালতোলা নৌকায় দু’ সপ্তাহ সমুদ্রযাত্রা করে তিনি মার্কিন উপকূলে ভিড়েছেন। এমনই তাঁর নিষ্ঠা।     

জলবায়ু পরিবর্তন রুখতে কী কাজ হচ্ছে সে সম্পর্কে রাষ্ট্রপুঞ্জের তরফে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে শীর্ষ সম্মেলন বসছে। এই ‘ইউনাইটেড নেশনস ক্লাইমেট অ্যাকশন সামিট’-এ বলার জন্যই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন গ্রেটা থুনবার্গ। তবে তাঁর কর্মসূচিতে আরও অনেক কিছুই আছে। নিউ ইয়র্কে ট্রেভর নোয়ার সঙ্গে ‘দ্য ডেইলি শো’-এ দেখা যাবে গ্রেটাকে। তা ছাড়া জলবায়ু নিয়ে তাঁর সক্রিয়তার স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্রহণ করবেন।

জলবায়ুর পরিবর্তন ইস্যুতে সুইডিশ পার্লামেন্টের সামনে দিনের পর দিন সাপ্তাহিক ধরনা চালিয়ে সংবাদের শিরোনামে আসেন গ্রেটা থুনবার্গ। এবং তাঁরই দেখানো পথ ধরে বিশ্ব জুড়ে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরা ধরনা-বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন। এঁদের নাম হয়েছে ‘ক্লাইমেট কিড’। তাঁরা গড়েছেন ‘ফ্রাইডেস ফর ফিউচার’। এঁদেরই ডাকে মাঝেমাঝেই সংঘটিত হচ্ছে ‘ক্লাইমেট স্ট্রাইক’। এ রকমই একটি বিশ্বব্যাপী ‘ক্লাইমেট স্ট্রাইক’ তথা জলবায়ু ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর।        

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here