সেন্ট জন্‌স (আন্টিগা): হাওয়ার গতিবেগ ঘন্টায় ২৯৫ কিমি। আতলান্তিকের ইতিহাসে সব থেকে ভয়ংকর ঝড় আছড়ে পড়ল ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের দেশ আন্টিগা এবং বার্বুডায়। ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে এই দেশের পরিচিত ভিভিয়ান রিচার্ডসের দেশ হিসাবে। আবার এখানেই দু’টি মহাকাব্যিক ইনিংস রয়েছে ব্রায়ান লারার।

স্থানীয় সময় বুধবার মধ্যরাতের পর আন্টিগায় আছড়ে পড়ে হারিকেন ‘ইর্মা’। তার আগে বাসিন্দাদের সতর্ক করার জন্য সে দেশের প্রশাসনের তরফ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়। সেই বিবৃতির শেষে বলা ছিল, “ভগবান আমাদের সবাইকে রক্ষা করুন।”

‘ইর্মা’র প্রভাবে আন্টিগা এবং বার্বুডায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কতটা সেটা এখনও হিসেব করা যায়নি। তবে অনেক দিন বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে না, সে ব্যাপারে নিশ্চিত ছিলেন বাসিন্দারা। আগাম জিনিসপত্র সংগ্রহ করে নেওয়ার জন্য মঙ্গলবার বাজারে এসেছিলেন বাসিন্দা ক্যারোল জোসেফ। তাঁর কথায়, “এটা ক্যাটেগোরি ৫-এর ঝড়। কী হবে কিছুই বুঝতে পারছি না। কত দিন বিদ্যুৎ থাকবে না, সেটাও জানি না, তাই আরও বাজার থেকে আরও ব্যাটারি কিনে নিচ্ছি।”

আন্টিগার পরে ‘ইর্মা’র পথে পড়তে চলেছে পুয়ের্তো রিকো, ডোমিনিকান রিপাব্লিক, হাইতি, কিউবা। মার্কিন প্রশাসনের আশঙ্কা সপ্তাহের শেষে ফ্লোরিডায় আছড়ে পড়বে এই ঝড়। ইতিমধ্যেই ফ্লোরিডা, পুয়ের্তো রিকো এবং মার্কিন ভার্জিন আইল্যান্ডে চরম অবস্থা ঘোষণা করেছে প্রশাসন। অন্য দিকে দেশের ছ’টা দ্বীপ থেকে মানুষজনকে নিরাপদ স্থানে সরানোর কাজ শুরু করেছে বাহামাস।

track of hurrica irma
‘ইর্মা’র সম্ভাব্য পথ। সৌজন্য ওয়াশিংটন পোস্ট

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্যারিবিয়ান সাগর এবং মেক্সিকো উপসাগরে অতীতে চারটে হারিকেন হয়েছিল যারা ‘ইর্মা’র মতো বা তার থেকে বেশি শক্তিশালী। কিন্তু আতলান্তিক সাগরে এ রকম শক্তিধর ঝড় আগে হয়নি। ঝড়ের ব্যাপারে এখন থেকেই তটস্থ হয়ে গিয়েছে পুয়ার্তো রিকো। অনেক বাসিন্দাই ধরে নিয়েছেন আগামী চার থেকে ছ’মাস আর বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে না। সে রকম ভাবেই প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছে তারা।

ঠিক কতটা তাণ্ডব চালাতে পারে এই ঝড়, সেই নিয়েই চিন্তা সবার। প্রশাসনের প্রার্থনা ভালোয় ভালোয় উতরে যাক সব কিছু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here