mayanmar
জেলমুক্তির পর দুই সাংবাদিক।

ওয়েবডেস্ক: টানা ১৬ মাস জেলে কাটানোর পর অবশেষে মুক্তি পেলেন মায়ানমারে কর্মরত আন্তর্জাতিক সংবাদসংস্থা রয়টার্সের দুই সাংবাদিক। মায়ানমারে রোহিঙ্গা নিধনের খবর করে এবং এই রোহিঙ্গাদের অবস্থার জন্য মায়ানমার সরকারের সমালোচনা করে জেলে যেতে হয়েছিল তাঁদের। তবে আইনি লড়াইয়ে জয় হয়েছে তাঁদের।

২০১৭-এর আগস্ট এবং সেপ্টেম্বরে মায়ানমারের রোহিঙ্গা নিধন চালানো হচ্ছিল নির্বিচারে। চরমপন্থী বৌদ্ধ এবং সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় এই হত্যালীলা চলে বলে অভিযোগ। আন্তর্জাতিক মহলের প্রবল চাপে পড়ে মায়ানমার সরকার। এমনই এক সংকটের মুহূর্তে তদন্তমূলক সাংবাদিকতার কাজে নেমেছিলেন বছর ৩০-এর ওয়া লোন এবং ২৯ বছরের কাইয়া সোই৷ ঘটনাস্থল থেকে রোহিঙ্গা নিধনের দুর্ধর্ষ সব প্রতিবেদন দিচ্ছিলেন তাঁরা।

এই খবর করার দোষেই তাঁদের ওপরে রুষ্ট হয় মায়ানমার সরকার এবং তাঁদের জেলের নির্দেশ দেয়। এর প্রতিবাদে গর্জে ওঠে বিভিন্ন সংগঠন। তীব্র নিন্দা করে রয়টার্সও।  

আরও পড়ুন ভিভিপ্যাট মামলায় সুপ্রিম কোর্টে ধাক্কা বিরোধীদের

এর পরেই শুরু হয় আইনি লড়াই। দুই সাংবাদিকের জামিনের আর্জি বার বার খারিজ করে দেয় ইয়াঙ্গন হাইকোর্ট৷ চলতি বছরের জানুয়ারি, এপ্রিলেও খারিজ হয়ে যায় আবেদন৷ কিন্তু দু’জনের বিরুদ্ধে অপরাধের যথাযথ প্রমাণ জোগাড় করতে হিমশিম খেতে হয় পুলিশকে৷ শেষ পর্যন্ত সেই প্রমাণের অভাবেই মুক্তি পান ওই দুই তরুণ সাংবাদিক।

উল্লেখ্য সাহসী সাংবাদিকতার অবদানের জন্য গত এপ্রিলেই এই দু’জনকে পুলিৎজার পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here