Indonesia Quake, Tsunami

ওয়েবডেস্ক: গত শুক্রবার ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপের পালু শহরে প্রবল ভূমিকম্প এবং কিছুক্ষণ পরেই আছড়ে পড়া সুনামির জেরে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৮৩২। উদ্ধারকারীদের মতে, এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

রবিবার ইন্দোনেশিয়ার উপরাষ্ট্রপতি জুসুফ কাল্লা বলেন, মৃতের সংখ্যা হয়তো হাজার ছাড়াতে পারে। কারণ জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বিভাগের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, শনিবার উদ্ধার করা মৃতদেহের সংখ্যা ছিল ৪২০টি, এ দিন সেই সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ৮৩২-এ।

রবিবার সকাল থেকেই পালু শহরের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে উদ্ধার কাজ। নামানো হয়েছে সেনা বাহিনীকেও। এ দিন সকালেই প্রায় ১৫০ জন সুনামি দুগর্তকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম। ওই দুর্গতরা শুক্রবার ভূমিকম্পের পর সুনামি সতর্কতা জারির পর একটি উঁচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছিলেন।

বর্তমানে পালু শহর কার্যত ধ্বংস স্তূপে পরিণত হয়েছে। ভেঙে গিয়েছে ঘরবাড়ি, বিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগ, রাস্তাঘাটের অস্তিত্বও হারিয়ে গিয়েছে কোথাও কোথাও। প্রশাসন সূত্রে খবর, পালু শহরে ছিল প্রায় তিন লক্ষ মানুষের বাস।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকেলে পালু শহরে সুনামি আছড়ে পড়ার পরই টেলিভিশন চ্যানেল এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ভয়াবহ ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। আতঙ্কিত মানুষজন প্রাণ বাঁচাতে উদ্ভ্রান্তের মতো ছোটাছুটি করছে। কিন্তু শক্তিশালী সুনামির কাছে কোনো ভরসাই টিকছে না। শহরের সব থেকে বড়ো একটি মসজিদও ধসে গিয়েছে।

গত শুক্রবার ভূমিকম্পের পরই সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়। তবে জানা গিয়েছে, কোনো এক কারণে তা প্রত্যাহারও করে নেওয়া হয়। যদিও ওই সতর্কতা জারির জন্য বেশ কিছু মানুষ আগে থেকেই ব্যবস্থা নেওয়ায় প্রাণহানির সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। তবে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে, সুনামির আছড়ে পড়া ঢেউয়ে আহত হয়ে কয়েকশো মানুষ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁদের কারও কারও অবস্থা সংকট জনক।

গত মাসেও বেশ কয়েকবার ভূমিকম্পের কবলে পড়ে ইন্দোনেশিয়া। আগস্টের ৫ তারিখে আঘাত হানা ভূমিকম্পে দেশটিতে ৪৬০ জনেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন