mugabe

হারারে: গদি ক্রমশ টলমল হচ্ছে জিম্বাবোয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের। অভ্যুথানের পর প্রথম বার জনসমক্ষে দেখা গেলেও তাঁকে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে ইস্তফা দিতে বলল নিজের দলই। সেই দাবির সমর্থনে শনিবার দেশ জুড়ে সভারও আয়োজন করছে তারা।

জিম্বাবোয়ের অঘোষিত অভ্যুথানের কয়েক দিনের মধ্যেই নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে ফেলল ক্ষমতাসীন দল জিম্বাবোয়ে আফ্রিকান ন্যাশনাল ইউনিয়ন- পেট্রিয়োটিক ফ্রন্ট (জানু-পিএফ)। বিশেষজ্ঞদের ধারণা যে ভাবে তাঁর নিজের দলই মুগাবেকে সরে যেতে বলছে, এর থেকেই প্রমাণ হয় মুগাবের কর্তৃত্ব ক্রমশ কমছে। জানু-পিএফের এই সভা সমর্থন করছে সেনাও।

শুধু মুগাবেকে ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার অনুরোধই নয়, যাকে নিয়ে জিম্বাবোয়ের রাজনীতিতে এই টালমাটাল পরিস্থিতি, সেই মুগাবের স্ত্রী অর্থাৎ গ্রেস মুগাবেকে দল থেকে বহিষ্কারের করার জন্যও প্রস্তাব পাশ করে জানু-পিএফ। ইতিমধ্যে দেশের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার জানিয়ে দিয়েছে, বহিষ্কৃত ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়াই দেশকে নেতৃত্ব দেবেন।

সেনা অভ্যুথানের পর শুক্রবারই প্রথম জনসমক্ষে দেখা যায় মুগাবেকে। জিম্বাবোয়ে ওপেন ইউনিভার্সিটির গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে তিনি উপস্থিত ছিলেন। তবে কোনো বক্তব্য রাখেননি তিনি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here