Kate Hitchens

ওয়েবডেস্ক: ভিড়ে ঠাসা ট্রেন। তাই বলে এমনটা নয় যে, কোনো একজন তাঁকে নিজের আসনটি ছেড়ে দিয়ে কিছুক্ষণের জন্য দাঁড়াতে পারতেন না। অগত্যা শিশু স্তন্যপান করাতে হল দাঁড়িয়েই। এটাকে অমানবিক আখ্যা না দিয়ে খাকতে পারেননি লন্ডনের ব্লগার কেট হিচেন্স। তিনি নিজের ইন্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন সেই ছবি।

ইউকফোর্ড থেকে লন্ডনে যাচ্ছিলেন কেট। প্রায় আধ ঘণ্টা ছ’মাসের শিশুপুত্র চার্লিকে নিয়ে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে ছিলেন ৩২ বছরের কেট। কিন্তু একটি বারের জন্যও মা-সন্তানকে নিজের আসনটি ছেড়ে দেওয়ার প্রস্তাব তোলেননি। এর পরই খিদেয় কেঁদে ওঠে চার্লি। ইতস্তত বোধ করেন কেট। কিন্তু সেই দৃশ্য দেখেও ট্রেনের সহযাত্রী কোনো একজনের টনক নড়েনি। শেষমেশ নিজের পথই বেছে নিয়ে দাঁড়ানো অবস্থাতেই চার্লিকে স্তন্যপান করান কেট। ওই দু:সহ ঘটনার প্রতিবাদ জানানোর ইচ্ছেতেই তুলে রাখেন সেলফি। যা পরে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করতেই ওঠে সমালোচনার ঝড়।

কেট প্রাসঙ্গিক ভাবেই দাবি করেছেন, আমরা কোন পৃথিবীতে বাস করছি? একটা চলন্ত ট্রেনে এক মহিলা নিজেকে ঠিক রাখতেই হিমশিম খেয়ে যান, সেখানে ছ’মাসের শিশুকে তিনি স্তন্যপান করাচ্ছেন। প্রায় ১০ কেজি ওজনের শিশুকে ঝাঁকুনি উপেক্ষা করে মা স্তন্যপান করাচ্ছেন, আর আসনে বসে থাকা সহযাত্রীরা তা দেখেও না দেখার ভান করে আছেন।

 

View this post on Instagram

 

On my way home from London on a packed commuter train and this is what I faced. What has the world come to that a mother has to stand up on a moving train breast feeding a wriggling and writhing 6 month old, 20lb baby?! The point here isn’t just that I found it difficult because I was nursing (although that was bloody difficult!), but that not one person offered a mother carrying a small child a seat for around half an hour, or 3 stops! I could have asked, but I didn’t. I felt silly. I shouldn’t have to ask. Maybe some people didn’t see. I know for a fact some did; they made eye contact and actually smiled at me. I was thinking stop smiling and offer me your seat please! One lady looked up from her book and immediately offered me her seat, another lady then sat in it and when the lovely lady said ‘Oh excuse me I actually gave up my seat so this lady with a baby could sit down’ the sitting lady shrugged, plugged her earphones in and closed her eyes! I like to think that she needed that seat more than me, perhaps she was newly pregnant and in that early exhaustion period, perhaps she was knackered after a day at work, perhaps she was ill. Or perhaps she was just a twat. I hope not. I can somewhat understand not offering your seat to someone elderly; perhaps they might be offended you think they look old! I can understand not offering your seat to someone you suspect might be pregnant; maybe it’s just their time of the month or perhaps they are just naturaly curvy and they aren’t pregnant; perhaps you worry you might offend them. I cannot get my head around not offering a parent with a child a seat. Next time you see someone with a child on a train – if you’re able bodied and fit and healthy please offer your seat to them!

A post shared by Hitchens’ Kitchen BLW Club (@baby_led_weaning_club) on

আরও অপমানিত হতে হয় যখন কেট বলেন, “অনেকেই এটা দেখতে পাননি। কিন্তু অনেকেই দেখলেন। চোখাচোখা হতেই তাঁরা মৃদু হাসলেন। আমি মনে মনে বললাম, হাসি বন্ধ করুন, দয়া করে একটা বসার জায়গা দিন”।


পড়তে পারেন: পতিতাকে নয়, গ্রেফতার করা হোক খদ্দেরকে, দেহ ব্যবসা নিয়ে সরব তসলিমা

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন