ইসলামাবাদ: ভবিষ্যতে আর কখনও প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না নওয়াজ শরিফ। পাকিস্তানের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে শুক্রবার এই ঐতিহাসিক রায় দিল সে দেশের সুপ্রিম কোর্ট। এমনই জানা গিয়েছে পাকিস্তানের প্রথম সারির সংবাদপত্র ডনের তরফ থেকে।

পানামা পেপার মামলায় গত বছর জুলাইয়ে শরিফকে বরখাস্ত করে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। এর ফলে প্রধানমন্ত্রিত্বের পদ ছাড়তে হয় তাঁকে। শুক্রবার আদালত জানিয়েছে যে ধারায় জুলাইয়ে সেই রায় দেওয়া হয়েছিল, সেই ধারা অনুযায়ী কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সারা জীবনের জন্য আর কোনো পদেই থাকতে পারবে না।

বিপুল অঙ্কের বেনামী সম্পত্তি রাখার অভিযোগে শরিফ এবং তাঁর তিন সন্তানের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। শরিফের পাশাপাশি মন্ত্রিত্বপদ খোয়াতে হয় পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী ইশাক দারকেও। শরিফের সঙ্গে ইশাকের পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে। সেই সঙ্গে সাংসদপদ থেকে ইস্তফা দিতে হয় শরিফের জামাই ক্যাপ্টেন মহম্মদ সফদারকেও।

যে ধারায় শরিফের ওপরে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল সে ৬২(১)(এফ) ধারা নিয়ে বেশ কয়েক দিন শুনানি চলছিল। জুলাইয়ের নিষেধাজ্ঞা শুধুমাত্র একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য না কি সারা জীবনের জন্য সেই ব্যাপারেই শুনানি চলে। শুক্রবার সেই রায় শোনায় আদালত।

সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যেরর ডিভিশন বেঞ্চের পাঁচ জনের মতামতই শরিফের বিরুদ্ধে গিয়েছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন