christchurch mosque attack
তীব্র আতঙ্কে মসজিদ থেকে বেরোচ্ছেন কয়েকজন।

ক্রাইস্টচার্চ: ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে জঙ্গি হামলার ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে কমপক্ষে ৪৯ জনের। নিউজিল্যান্ড প্রশাসনের তরফ থেকে এমনই খবর পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি বন্দুকবাজ অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক বলে জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী।

শুক্রবার ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে চারটে নাগাদ ক্রাইস্টচার্চের দু’টি মসজিদে হামলা চালায় বন্দুকবাজ। প্রচুর হতাহতের আশঙ্কা করা হলেও, কত জনের মৃত্যু হয়েছে, সেটা তখনই জানায়নি পুলিশ প্রশাসন। নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে এই ধরনের ঘটনা কখনও ঘটেনি বলে জানান সে দেশের প্রধানমন্ত্রী জ্যাকিন্ডা আর্ডের্ন। নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে ‘কালো দিন’ আখ্যা দিয়ে এই ঘটনাকে জঙ্গি হামলা ঘোষণা করতে দেরি করেননি তিনি।

আরও পড়ুন ভাগ্যের জোরে বেঁচে গেলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা

এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে চার জনকে গ্রেফতার করে নিউজিল্যান্ড পুলিশ। এর মধ্যে এক অস্ট্রেলীয় নাগরিক স্বীকার করে নেয়, সেই এই হামলা চালিয়েছে। বন্দুকবাজ সম্পর্কে বলতে গিয়ে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, “হামলাকারী একজন কট্টরবাদী, দক্ষিণপন্থী, হিংস্র অস্ট্রেলীয় নাগরিক।”

উল্লেখ্য, শুক্রবারের নমাজের জন্য ভিড়ে ঠাসা ছিল এই মসজিদ। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই হামলা চালায় ওই জঙ্গি। পাশাপাশি দু’টি মসজিদে হামলা চালানো হয়। এই হামলা থেকে বরাত জোরে বেঁচে যায় বাংলাদেশের ক্রিকেট দল। মসজিদের কাছাকাছি পৌঁছোনোর সময়েই তারা এই হামলার খবর জানতে পারে। সঙ্গে সঙ্গে ক্রিকেটারদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ব্যাপারে যে ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে সেখানে তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকারদের যথেষ্ট আতঙ্কগ্রস্ত দেখাচ্ছে। এই ঘটনার পরে নিউজিল্যান্ড সফর বাতিল করে বাড়ি ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ দল।

অন্য দিকে ব্যবস্থা নিয়েছে নিউজিল্যান্ড প্রশাসনও। আপাতত দেশের সব মসজিদের দরজা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিশ্ব জুড়ে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here