প্রতীকী ছবি

ওয়েলিংটন: ভারতের পর পুরোপুরি লকডাউনের (Lockdown) পথে হাঁটল নিউজিল্যান্ডও (New Zealand)। কিন্তু লকডাউন ঘোষণা করার আগে দেশবাসীকে বিশেষ আবেদন করলেন প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডেন (Jacinda Arden)। দেশের মানুষের কাছে তাঁর আবেদন, “ধরে নিন আপনারা সবাই কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত।”

করোনাভাইরাস (Coronavirus) এ বার জাল বিস্তার করতে শুরু করেছে নিউজিল্যান্ডেও। এখনও পর্যন্ত দেশে আক্রান্ত ২০৫। গত ২৪ ঘণ্টায় সংখ্যাটা এক লাফে বেড়েছে ৫০। ফলে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না সে দেশের সরকার।

কোনো ঝুঁকি না নিয়ে এক্কেবারে এক মাসের জন্য দেশে লকডাউনের ঘোষণা করে দিয়েছেন আর্ডেন। বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে এসে আর্ডেন খুব সুস্পষ্ট ভাবে বলে দিয়েছেন যে পরিস্থিতির সামগ্রিক উন্নতি হওয়ার আগে রোগীর সংখ্যা ক্রমে বাড়তে পারে।

তিনি বলেন, “মনে রাখবেন, পরিস্থিতির আগে অবনতি হবে, তার পর ক্রমে উন্নতি শুরু করবে। আগামী সপ্তাহটা খুব গুরুত্বপূর্ণ আমাদের কাছে। তার পরেই বোঝা যাবে আমরা কতটা সফল হলাম।”

আরও পড়ুন করোনাভাইরাস নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী নোবেলজয়ী বিজ্ঞানীর, আশায় বুক বাঁধছেন বিশ্ববাসী

ভারতের মতোই সে দেশেও শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সাধারণ মানুষকে নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরোতে নিষেধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, মাত্র ৫০ লক্ষ জনসংখ্যার দেশ নিউজিল্যান্ডে করোনার বিরুদ্ধে সব থেকে আগে পদক্ষেপ করতে শুরু করেছে। আক্রান্ত সংখ্যা যখন ১০ পেরোয়নি, তখন থেকেই উড়ানে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়ে গিয়েছিল সেই দেশে।

বড়ো সমাবেশ এড়ানো এবং বিদেশ ফেরতদের বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা অনেক আগে থেকেই নিউজিল্যান্ড করেছে। কিন্তু তার পরেও আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ফলে আর কোনো উপায় না দেখেই লকডাউন ঘোষণা করেছেন আর্ডেন।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন