চিনে কিম, পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধের আশ্বাস, অবগত করা হল ট্রাম্পকেও

0

বেজিং: জল্পনাটা গত কয়েক দিন ধরেই চলছিল, যে ঐতিহাসিক চিন সফরে গিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন। অবশেষে সব জল্পনার অবসান। কিমের সফরের কথা স্বীকার করে নিল চিন। সেই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হল পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধের আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

চিন এবং উত্তর কোরিয়া, বুধবার এই খবরের সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছে। এই সফরকে নিতান্ত ঘরোয়া সফর বলে আখ্যা দিয়েছে চিনা সংবাদমাধ্যম ঝিনহুয়া।

২০১১-এ পিয়ংইয়ং-এর মসনদে বসার পরে এই প্রথম বিদেশ সফরে এসেছেন কিম। মনে করা হচ্ছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের একটা রূপরেখা তৈরি করার উদ্দেশ্যেই চিন এসেছেন কিম। এমনিতে উত্তর কোরিয়ার সব থেকে কাছের মিত্রদেশ চিন। কিন্তু সাম্প্রতিককালে সেই সম্পর্কেও চিড় ধরতে শুরু করেছিল। গত বছর একের পর এক পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করে পিয়ংইয়ং। ক্ষুব্ধ বেজিং জানিয়ে দিয়েছিল, এই পরীক্ষা বন্ধ না করলে দু’দেশের সম্পর্ক আর কখনও আগের মতো হবে না।

তবে পরমাণু পরীক্ষা বন্ধের ব্যাপারে কিমের থেকে আশ্বাস পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে ঝিনহুয়া। সংবাদমাধ্যমের তরফে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়ার উদ্যোগেই কোরিয়া পেনিনসুলায় পরিস্থিতি এখন অনেকটা উন্নত হয়েছে, এমনই জানিয়েছেন কিম। সেই সঙ্গে আলোচনার বার্তাও দিচ্ছে উত্তর কোরিয়া। কিমকে উদ্ধৃতি করে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, “পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর উত্তর কোরিয়া।”

চিন প্রেসিডেন্ট জি ঝিনপিং-এর সঙ্গে আলোচনার সমস্ত বিবরণ ট্রাম্পের কাছে পাঠানো হয়েছে, এমনই জানিয়েছে হোয়াইট হাউসকে। সেই সঙ্গে চিনা প্রেসিডেন্টের একটি ব্যক্তিগত বার্তাও ট্রাম্পকে পাঠানো হয়েছে। এর পরে হোয়াইট হাউসের থেকে একটি বিবৃতিতে বলে হয়েছে, “দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপানের গুরুত্বপূর্ণ সঙ্গী যুক্তরাষ্ট্র। উত্তর কোরিয়ার ওপরে আমরা যে ভাবে চাপ সৃষ্টি করে চলেছি, তার ফলেই শান্তি আলোচনা শুরু করার ব্যাপারে রাজি হয়েছে পিয়ংইয়ং।”

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন