রাষ্ট্রপুঞ্জের নিষেধাজ্ঞাকে থোড়াই কেয়ার করে পরীক্ষামূলক ভাবে পঞ্চম পরমাণু বিস্ফোরণ ঘটাল উত্তর কোরিয়া। স্থানীয় সরকারি টিভি চ্যানেলে এই বিস্ফোরণের কথা সরকারি ভাবে স্বীকার করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উত্তর কোরিয়ার পরমাণুকেন্দ্র পুঙ্গা রির নিকটবর্তী অঞ্চলে ৫.৩ মাত্রার একটি ভূমিকম্প সনাক্ত করে দক্ষিণ কোরিয়া। কম্পনের মাত্রা দেখে দক্ষিণ কোরিয়া অনুমান করে পরীক্ষামূলক পরমাণু বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন কিম জং। পরমাণু বোমাটি হিরোশিমায় ফেলা  ১৫ কিলোটনের ‘লিটিল বয়’-এর চেয়েও বেশি শক্তিশালী।

 
২০০৬ সালে উত্তর কোরিয়া প্রথম পরমাণু বিস্ফোরণ ঘটানোর পরই সে দেশের উপর পরমাণু এবং অন্যান্য ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করে রাষ্ট্রপুঞ্জ। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞাকে যে মোটেই কেয়ার করছেন না কিম জং,  দেশের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী চলার সময় এই পরমাণু পরীক্ষা তারই প্রমাণ।

উত্তর কোরিয়ার এই পরীক্ষামূলক বিস্ফোরণে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপান। বাতাসে তেজস্ক্রিয়তার নমুনা সংগ্রহের জন্য একটি বিশেষ বিমানও পাঠিয়েছে জাপান। উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আমেরিকাও। উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে সোচ্চার হবে জাপান, জানিয়েছেন সে দেশের বিদেশমন্ত্রী ফুমিও কিদিশা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here