সিওল ও ওয়াশিংটন: আমেরিকা তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাধতে পারে বলে হুমকি দিয়েছে, চিন বলে দিয়েছে আরও পরমাণু বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করলে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাবে। এত শতর পরেও দমানো যাচ্ছে না উত্তর কোরিয়াকে। শনিবার ভোরে আবার তারা ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে, যদিও আমেরিকার দাবি, পরীক্ষা সফল হয়নি। ‘চিনের ইচ্ছাকে অসম্মান জানানোর’ জন্য টুইট করে উত্তর কোরিয়ার নিন্দা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, শনিবার খুব ভোরে দক্ষিণ পিয়নগান প্রদেশের পুকচাং-এর কাছে ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা হয়। মার্কিন সরকারি সূত্র সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, প্রাথমিক ইঙ্গিতে মনে হচ্ছে পরীক্ষাটি ব্যর্থ হয়েছে। মার্কিন সেনাবাহিনীর প্যাসিফিক কমান্ড জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি উত্তর কোরিয়ার সীমা ছাড়াতে পারেনি। কমান্ডার ডেভ বেনহ্যাম এক বিবৃতিতে বলেছেন, “আমরা হিসাব করে দেখেছি ‘হাওয়াই সময়’ সকাল ১০টা ৩৩ মিনিটে পুকচাং এয়ারফিল্ডের কাছে উত্তর কোরিয়া একটি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে। উত্তর কোরিয়ার সীমার মধ্যেই ক্ষেপণাস্ত্রটি ধ্বংস হয়ে যায়।”

এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার তীব্র নিন্দা করেছে জাপানও। বলেছে, রাষ্ট্রপুঞ্জের প্রস্তাব অগ্রাহ্য করে এই পরীক্ষা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। শনিবার লন্ডনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেছেন, “আন্তর্জাতিক স্তরে কড়া সতর্কীকরণের পরেও উত্তর কোরিয়া ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করল।  এটা জাপানের কাছে একটা ভয়ংকর বিপদ।”

ট্রাম্প আটলান্টা সফর সেরে হোয়াইট হাউসে ফিরলে মার্কিন প্রশাসনের অফিসাররা তাঁকে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার খবর দেন। তিনি সরাসরি সাংবাদিকদের কিছু বলেননি, টুইট করে তাঁর প্রতিক্রিয়া দেন। পিয়ংইয়ং-এর আরও নিষেধাজ্ঞা চাপানোর ইঙ্গিত দেন মার্কিন প্রশাসনের এক শীর্ষ স্থানীয় অফিসার। আমেরিকার আশা, উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে চিনও নিষেধাজ্ঞা জারি করবে।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার আগে রাষ্ট্রপুঞ্জের এক বিশেষ সভায় মার্কিন বিদেশ সচিব রেক্স টিলারসন বলেন, উত্তর কোরিয়ার কাছ থেকে ভবিষ্যতে কোনো প্ররোচনা এলে তার মোকাবিলা করার সব পথ খোলা রয়েছে। কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক ব্যবস্থার পাশাপাশি সামরিক পথও খোলা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here