Connect with us

বিদেশ

ইমরান খানের সম্ভাব্য ভারত সফর নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া বিরোধীদের

Published

on

Imran-Khan

ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও)-এর বার্ষিক বৈঠকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে ভারত। তবে তাঁর এই সম্ভাব্য ভারত সফর আদৌ সঠিক পদক্ষেপ কি না, তা নিয়েই দেশের অন্দরে চলছে জোর জল্পনা।

বিভিন্ন বিরোধী দলগুলি ইমরানের সম্ভাব্য ভারত সফরের বিরোধিতা করছে। আবার কেউ কেউ বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে না চাইলেও অনেকেই কেন্দ্রের পদক্ষেপকে সমর্থন জানাচ্ছে।

২০০১ সালে রাশিয়া, চিন, কিরগিজ প্রজাতন্ত্র, কাজাখাস্তান, তাজিকিস্তান এবং উজবেকিস্তানের রাষ্ট্রপতিদের সহমতের ভিত্তিতে সাংহাইয়ের একটি শীর্ষ সম্মেলনে এসসিও প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। গত ২০০৫ সাল থেকে এসসিও-তে পর্যবেক্ষক দেশ হিসাবে ছিল ভারত। ২০১৭ সালে পাকিস্তান এসসিও-র পূর্ণাঙ্গ সদস্য হয়ে ওঠে।

Loading videos...

চলতি বছরেই ভারত প্রথমবারের জন্য এই সংগঠনের আয়োজন করছে। স্বাভাবিক ভাবেই সদস্য দেশগুলির শীর্ষস্তরের প্রতিনিধিদের উপস্থিত থাকাটাই বাঞ্ছনীয়। কিন্তু ভারত-পাক কূটনৈতিক সম্পর্কের জেরে ইমরানকে আমন্ত্রণ জানানো অথবা সেই আমন্ত্রণ রক্ষায় তাঁর ভারত আগমন নিয়ে দুই দেশের রাজনৈতিক মহলে জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে।

যদিও আপাতত বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে নারাজ বিরোধী দল কংগ্রেস। দলের নেতা আনন্দ শর্মা জানিয়েছেন, “এ বিষয়ে মন্তব্য করা নিষ্প্রয়োজন। ভারত আয়োজক দেশ, স্বাভাবিক ভাবেই পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানোই রীতি। কিন্তু ইমরান খান আসবেন কি না, সেটা তাঁদের ব্যাপার”।

তবে এনসিপির তরফে বিরোধিতা করা হয়েছে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের। দলের নেতা মজিদ মেনন জানিয়েছে, এখানে অন্তরঙ্গতার কোনো স্থান নেই।

আরজেডি নেতা মনোজ ঝা জানান, এক দিকে আমরা সম্পর্ক ত্যাগ করার কথা বলছি, অন্য দিকে আবার তাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। উন্নত গণতন্ত্রে এ ধরনের আচরণ মানায় না।

আরও পড়ুন: পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ

প্রসঙ্গত, অর্থনৈতিক এবং সুরক্ষা সম্পর্কিত এই সংগঠনটিতে বর্তমানে সদস্য দেশের সংখ্যা আট। তবে সংগঠনে চিনের প্রভাবই অত্যধিক।

বিদেশ

ফাইজারের করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে নরওয়েতে মৃত ২৩, শুরু তদন্ত

শারীরিক ভাবে অপেক্ষাকৃত দুর্বল, আশি বছরের বেশি বয়সিদের মধ্যে এই ভ্যাকসিনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।

Published

on

নরওয়েতে ৩০ হাজার মানুষ করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন। প্রতীকী ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পর নরওয়েতে (Norway) ২৩ জন বৃদ্ধের মৃত্যু উদ্বেগ বাড়িয়েছে। শুধু তাই নয়, ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে এই ২৩ জন ছাড়াও আরও বেশ কয়েক জন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু হরেছে।

ব্লুমবার্গের রিপোর্ট অনুযায়ী, ফাইজার-বায়োএনটেকের (Pfizer-BioNTech) করোনা ভ্যাকসিন (Coronavirus Vaccine) নেওয়ার স্বল্প সময়ের মধ্যেই ২৩ জন বৃদ্ধের মৃত্যুর তদন্ত করছেন নরওয়ের চিকিৎসকেরা। তাঁরা জানিয়েছেন, শারীরিক ভাবে অপেক্ষাকৃত দুর্বল, আশি বছরের বেশি বয়সিদের মধ্যে এই ভ্যাকসিনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।

তবে যাঁরা মারা গিয়েছেন, তাঁদের মৃত্যুর সঙ্গে ভ্যাকসিনের কোনো সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে কি না, সে বিষয়ে নিশ্চিত নন চিকিৎসকেরা। যে ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাঁদের মধ্যে ১৩ জন ডায়রিয়া, বমি বমি ভাব এবং জ্বরের মতো উপসর্গগুলি দেখা দিয়েছিল। যা অন্য়ান্য এমআরএনএ ভ্যাকসিনের সাধারণ লক্ষণ হিসাবে বিবেচনা করা হয়।

Loading videos...

জানা গিয়েছে, নরওয়ের এই মৃত্য়ুর ঘটনার জেরে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ফাইজার। তারা এখন ইউরোপে নিজেদের তৈরি ভ্যাকসিন সরবরাহ সাময়িক ভাবে হ্রাস করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, নরওয়েজিয়ান ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ ৮০ বছরের বেশি বয়সিদের টিকাকরণে সতর্কতা জারি করেছে। জানিয়েছে, যাঁদের আয়ু কম, তাঁরা এই ভ্যাকসিন থেকে খুব বেশি উপকৃত হবেন না।

উল্লেখ্য, গত ডিসেম্বর মাস থেকেই নরওয়েতে টিকাকরণ শুরু হয়েছে। ফাইজার এবং মোডার্না মিলিয়ে প্রায় ৩০ হাজার মানুষ টিকা নিয়েছেন। গত বছরের শেষদিকে নরওয়েতে অনুমতি পেয়েছিল ফাইজার-বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন। জানুয়ারির শুরুতে মোডার্না (Moderna Inc) অনুমোদন পায়। তবে ২৩ জন বৃদ্ধের মৃত্যুর পর চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়েই টিকা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

এর আগে ফাইজারের ভ্য়াকসিন নেওয়ার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ফ্লোরিডা থেকে আসা এক ৫৬ বছর বয়সি চিকিৎসকের মৃত্যু হয়। আরও পড়তে পারেন এখানে: ফাইজারের করোনা টিকা নেওয়ার ১৬ দিন পর মৃত্যু চিকিৎসকের

Continue Reading

বিদেশ

করোনা মহামারিতে সন্দেহের পাত্র হয়ে ওঠা বাদুড়ের নতুন রং অবাক করে দিল গবেষকদের

এ বার চর্চায় কমলা বাদুড়।

Published

on

ওয়াশিংটন: আচমকা চোখের সামনে ঝুলন্ত বাদুড়, এমন দৃশ্য এক ঝলক দেখার পর যে কোনো মানুষই ঘাবড়ে যেতে পারেন। অনেকেই আবার করোনা অতিমারীর জন্য বাদুড়কেই চর্চায় তুলে নিয়ে এসেছেন। তবে কালো বা ধূসর বাদুড় দেখতে অভ্যস্ত অনেকেই এখনও কমলা বাদুড় সম্ভবত চাক্ষুষ করেননি, যেটাকে গবেষকরা সম্প্রতি খুঁজে পেয়েছেন।

নতুন এক প্রজাতির বাদুড়

গবেষকরা দাবি করেছেন যে, এটা বাদুড়ের সম্পূর্ণ নতুন একটি প্রজাতি। এটি শুধু কমলা রঙেরই নয়, এটির পশমের মতো লোম রয়েছে। বুধবার আমেরিকান জাদুঘর নোভাইটস-এর বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নালে এই বাদুড়টিকে নিয়ে তাঁদের সমীক্ষা প্রকাশ করেছেন গবেষকরা। এই গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে, এটি বাদুড়ের সম্পূর্ণ নতুন প্রজাতি।

আফ্রিকায় সন্ধান মিলেছে কমলা বাদুড়ের

গবেষকরা পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গিনিতে এই আকর্ষণীয় প্রজাতির বাদুড়ের সন্ধান পেয়েছেন। টেক্সাসের অস্টিনের একটি অলাভজনক সংস্থা বেট কনজার্ভেশন ইন্টারন্যাশনালের ডিরেক্টর জন ফ্ল্যান্ডারস বলেছেন, ‘প্রতিটি প্রজাতি গুরুত্বপূর্ণ। তবে মানুষ সব সময়ই আকর্ষণীয় চেহারার প্রাণী দেখার জন্য অধীর আগ্রহহে অপেক্ষা করে।

Loading videos...

তিনি বলেন, এখন গবেষণাগারে অনেক নতুন প্রজাতি আবিষ্কার করা হচ্ছে, তবে এ ভাবে সম্পূর্ণ নতুন প্রজাতির সন্ধান করতে জঙ্গলে যাওয়ার ঘটনা তাঁর কাছে একেবারে নতুন।

নিউইয়র্কের আমেরিকান মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্ট্রি-এর স্তন্যপায়ী প্রাণীর কিউরেটর ন্যানসি সিমন্স বলেছেন, “মনে হয় অভিজ্ঞ গবেষকরা স্পটে গিয়ে একটি প্রাণী ধরেছিলেন। এটা এমন একটি প্রাণী, যেটাকে আমরা সহজেই শনাক্ত করতে পারিনি”।

মিলেছে স্ত্রী এবং পুরুষ বাদুড়

মায়োটিস নিমবাঁইসিস নামের নতুন প্রজাতির বাদুড় বাস করে গিনির নিম্বা পর্বতমালায়। যদিও বিজ্ঞানীরা বলতে চাননি এটি একটি নতুন প্রজাতি। সুতরাং, তারা সঠিক তদন্তের জন্য এই বাদুড়ের একটি পুরুষ এবং একটি মহিলা প্রজাতিও ধরেছিলেন। সিমন্স তখন এই প্রজাতির নমুনাগুলির তুলনা করতে ওয়াশিংটন ডিসির স্মিথসোনিয়ান জাতীয় জাদুঘর এবং লন্ডনের ব্রিটিশ জাদুঘরেও গিয়েছিলেন।

জিনগত বিশ্লেষণে জানা গেছে যে এই কমলা রঙের বাদুড় তাদের নিকটাত্মীয়দের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। একটি নতুন প্রজাতি ঘোষণার ঘটনায় এটাই ছিল প্রথম পদক্ষেপ। কালো ডানাযুক্ত বাদুড়ের মতো আকারগত ভাবে এক রকম দেখতে দেখতে হলেও এদের কমলা রঙ প্রাণীটিকে আরও জনপ্রিয় করে তুলেছে।

আরও পড়তে পারেন: “করোনা ভ্যাকসিন কি বন্ধ্যাত্বের কারণ হতে পারে?” গুজব সামলাতে আসরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Continue Reading

বিদেশ

আমেরিকায় এই প্রথম! প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ডোনাল্ড ট্রাম্প, এর পর কী

১৩ মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ডোনাল্ড ট্রাম্প।

Published

on

ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: হোয়াইট হাউস ছাড়ার কয়েক দিন আগে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই প্রথম কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয় বারের জন্য ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হলেন। এর পর কী?

চূড়ান্ত ভোটের বেশ কয়েক মাস আগে সভায় তদন্ত ও শুনানি-সহ অতীতে ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হয়েছিলেন অ্যান্ড্রিউ জনসন, বিল ক্লিন্টন এবং ট্রাম্প। বছরখানেক আগে ইমপিচমেন্ট হয় ট্রাম্পের। ফের মার্কিন কংগ্রেসে তাঁর ইমপিচমেন্ট পাশ হয়েছে ২৩২-১৯৭ ভোটে। শুধু তাই নয়, ১০ জন রিপাবলিকানও এই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

ডেমোক্র্যাটরা দাবি জানিয়েছিলেন, ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অফিস ছাড়ার আগেই ট্রায়াল শুরু করতে। তবে বিদায়ী সেনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের নেতা মিচ ম্যাককনেল সেই প্রস্তাব খারিজ করে দিয়ে বলেছেন, ডেমোক্র্যাট জো বিডেন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেওয়ার আগের দিন বা আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সেনেটের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে না। অর্থাৎ, স্পিকার ঠিক করবেন, কত তাড়াতাড়ি ইমপিচমেন্ট আর্টিকল সেনেটে ট্রায়ালের জন্য পাঠানো হবে।

Loading videos...

স্বাভাবিক ভাবই এখনও স্পষ্ট নয়, ঠিক কবে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে। অথবা, ট্রাম্প অফিস ছেড়ে যাওয়ার পর কত জন রিপাবলিকান সেনেট সদস্য ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভোট দিতে পারেন। তবে ট্রায়াল শুরু না হলেও পূর্ব নির্ধারিত ভাবে ট্রাম্পকে অফিস ছাড়তেই হচ্ছে।

কেন ইমপিচমেন্ট?

২০১৯-এ আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট এবং তাঁর তৎকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে কাদা ছোঁড়ার জন্য তিনি ইউক্রেনের নেতাকে চাপ দেওয়ার অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট হয়। সে সময় ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত মার্কিন কংগ্রেস তাঁর ইমপিচমেন্ট করে। তবে রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সেনেট গত ফেব্রুয়ারিতে তাঁকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়।

এ বারের ইমপিচমেন্ট ইউএস ক্যাপিটলে হামলার ঘটনার জেরে। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবের জেরেই ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হতে হচ্ছে ট্রাম্পকে। অর্থাৎ, ১৩ মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ট্রাম্প।

এর পর কী?

এ বারের ট্রায়ালে দোষী সাব্যস্ত হলে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আর দাঁড়াতে পারবেন না ট্রাম্প। সে ক্ষেত্রে সেনেটের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর আইনসভার সদস্যরা একটি পৃথক ভোটের মাধ্যমে তাঁকে ভবিষ্যতে দায়িত্ব গ্রহণের অযোগ্য হিসেবে প্রমাণ করতে পারেন।

তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করার জন্য দুই তৃতীয়াংশ সেনেট সদস্যের সমর্থন চাই, তবে ভবিষ্যতে তাঁকে সম্পূর্ণ ভাবে আটকাতে সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের ভোটের প্রয়োজন। দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখে পড়ার পর ট্রাম্প অবশ্য নরম সুরেই কথা বলছেন। তিনি আমেরিকানদের উদ্দেশে ‘ঐক্যবদ্ধ’ থাকার এবং হিংসায় না জড়ানোর আরজি জানিয়েছেন। বাকিটা সময়ের হাতেই!

আরও পড়তে পারেন: টুইটারে বরাবরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, ‘চুপ করিয়ে রাখা’র ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
দঃ ২৪ পরগনা16 mins ago

করোনা, উম্পুন যাঁর ১২ বছরের দায়িত্বপালনে ছেদ ফেলতে পারেনি

রাজ্য41 mins ago

কোনো ভুল বোঝাবুঝি নেই, কংগ্রেস-বামফ্রন্ট এক সঙ্গে নির্বাচনে লড়বে: বিমান বসু

দেশ1 hour ago

দিল্লিতে দৈনিক করোনা সংক্রমণের হার কমে ০.৪৪ শতাংশ

রাজ্য2 hours ago

সোমবার নন্দীগ্রামে সভা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের, দক্ষিণ কলকাতায় শুভেন্দু অধিকারী

বাংলাদেশ2 hours ago

বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারকে ঘিরে রেলের উন্নয়নযজ্ঞ

শিল্প-বাণিজ্য2 hours ago

বাজেট ২০২১: ফুড ডেলিভারিতে জিএসটি কমানোর দাবি

দেশ2 hours ago

বার্ড ফ্লু: ভারতের ডিম, মুরগির বাচ্চা আমদানি নিষিদ্ধ করল বাংলাদেশ

দেশ3 hours ago

কৃষক বিক্ষোভ: প্রস্তাবিত ট্র্যাক্টর র‍্যালির বিরুদ্ধে সোমবার শুনানি সুপ্রিম কোর্টে

রাজ্য1 day ago

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করতে সিপিএমের লাইনেই খেলছেন শুভেন্দু অধিকারী

দেশ2 days ago

করোনার টিকা নেওয়ার পর অসুস্থ হলে দায় নেবে না কেন্দ্র

দেশ2 days ago

নবম দফার বৈঠকেও কাটল না জট, ফের কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে কেন্দ্র

প্রযুক্তি2 days ago

হোয়াটসঅ্যাপে এ ভাবে সেটিং করলে আপনার আলাপচারিতা কেউ দেখতে পাবে না এবং তথ্যও থাকবে নিরাপদে

রাজ্য2 days ago

দিল্লি যাচ্ছেন শতাব্দী রায়, জিইয়ে রাখলেন অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাতের সম্ভাবনা

রাজ্য2 days ago

রোজভ্যালি-কাণ্ডে শুভ্রা কুণ্ডুকে গ্রেফতার করল সিবিআই

election commission of india
রাজ্য2 days ago

ভোট প্রস্তুতি তুঙ্গে! রাজ্যে আসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ

ক্রিকেট2 days ago

অভিষেকে লড়াকু নটরাজন, সুন্দর, অস্ট্রেলিয়া ২৭৪

কেনাকাটা

কেনাকাটা5 days ago

৯৯ টাকার মধ্যে ব্র্যান্ডেড মেকআপের সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : ব্র্যান্ডেড সামগ্রী যদি নাগালের মধ্যে এসে যায় তা হলে তো কোনো কথাই নেই। তেমনই বেশ কিছু...

কেনাকাটা1 week ago

কয়েকটি ফোল্ডিং আইটেম খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি সঙ্গে থাকলে অনেক সুবিধে হত বলে মনে হয়, কিন্তু সব সময় তা পাওয়া...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের কাজ এগুলি সহজ করে দেবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের কাজ অনেক বেশি সহজ করে দিতে পারে যে সমস্ত জিনিস, তারই কয়েকটির খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 weeks ago

ম্যাক্সিড্রেসের নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সুন্দর ম্যাক্সিড্রেসের চাহিদা এখন তুঙ্গে। সামনেই কোনো আনন্দ অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ থাকলে ম্যাক্সি পরতে পারেন। বাছাই করা কয়েকটি ড্রেসের...

কেনাকাটা2 weeks ago

রকমারি ডিজাইনের ৯টি পুঁটলি ব্যাগের কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুমে নিমন্ত্রণে যেতে সাজের সঙ্গে মিলিয়ে ব্যাগ নেওয়ার চল রয়েছে। অনেকেই ডিজাইনার ব্যাগ পছন্দ করেন। তেমনই কয়েকটি...

কেনাকাটা2 weeks ago

কস্টিউম জুয়েলারির দারুণ কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুম আসছে। নিমন্ত্রণবাড়ি তো লেগেই থাকে। সেখানে আজকাল সোনার গয়নার থেকে কস্টিউম বা জাঙ্ক জুয়েলারি পরে যাওয়ার...

কেনাকাটা2 weeks ago

রুম হিটারের কালেকশন, ৬৫০ থেকে শুরু

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভালোই শীত চলছে। এই সময় রুম হিটারের প্রয়োজনীয়তা খুবই। তা সে ঘরের জন্যই হোক বা অফিস, বা কোথাও...

কেনাকাটা3 weeks ago

চোখের যত্ন নিতে কিনুন এগুলি, খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অনেকেই আছেন সারা দিনের ব্যস্ততার মাঝে যদিও বা পা, হাত বা মুখের টুকটাক যত্ন নেন, কিন্তু চোখের বিশেষ...

কেনাকাটা4 weeks ago

ফিলগুড প্রোডাক্ট! পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দিনের মধ্যে কিছু সময় যদি নিজের মতো করে নিজের জন্য দেওয়া যায় তা হলে মন যেমন ভালো থাকে...

কেনাকাটা4 weeks ago

জায়গা বাঁচানোর জন্য বিভিন্ন রকমের অর্গানাইজার, দেখে নিন খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রোজকার ঘরে ব্যবহারের জন্য এমন অনেক জিনিস আছে যেগুলি থাকলে যেমন জায়গার সাশ্রয় হয় তেমনই সময়েরও। জায়গা বাঁচানোর...

নজরে