ইমরান প্রত্যাঘাতের কথা বললেও বিশেষজ্ঞদের মতে সেই সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ

ইসলামাবাদ: নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করে জঙ্গি ঘাঁটিতে বায়ুসেনার অসামরিক অভিযানের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া জানালেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। দেশবাসীকে সব রকম পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে বললেন তিনি। পাশাপাশি সঠিক সময়ে, ভারতে প্রত্যাঘাত করার কথা বললেন তিনি। যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, পাকিস্তানের প্রত্যাঘাত করার সম্ভাবনা কার্যত নেই।

মঙ্গলবার ভোরে বালাকোটে জইশ-এ-মহম্মদের ঘাঁটিতে বায়ুসেনার বোমাবর্ষণের পর বিশেষ বৈঠকে বসেন ইমরান। ইমরানের অফিসে জাতীয় নিরাপত্তা কমিটির সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিদেশ, প্রতিরক্ষা ও অর্থ দফতরের মন্ত্রী, সেনাবাহিনীর প্রধান এবং আরও কয়েক জন আধিকারিক।

এই বৈঠকের পর জাতীয় নিরাপত্তা কমিটি অভিযোগ করে, শুধুমাত্র ভোটের কথা মাথায় রেখে অঞ্চলের শান্তি বিঘ্নিত করার জন্য তাদের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে ভারত। একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “এই বৈঠকে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়েছে যে পাকিস্তানের ওপর ভারতের আগ্রাসী মনোভাবের পরিপ্রেক্ষিতে সঠিক সময়ে সঠিক ভাবে প্রত্যাঘাত করা হবে।”

এই বৈঠকের আগে একই কথা শোনা গিয়েছিল পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির গলাতেও। তিনিও বলেন, নিয়ন্ত্রণরেখার আকাশসীমা লঙ্ঘন করার জবাব সঠিক সময়ে ভারতকে দেবে পাকিস্তান।

আরও পড়ুন পুলওয়ামা হামলার পাশাপাশি কুড়ি বছর আগের একটি ঘটনারও বদলা নিল বায়ুসেনা!

যদিও বিশেষজ্ঞদের দাবি, পাকিস্তানের তরফ থেকে কোনো প্রত্যাঘাত করা কার্যত অসম্ভব। কারণ সে ক্ষেত্রে পাকিস্তানকে আগে মেনে নিতে হবে যে তাদের মাটিতে ভারতের হামলায় সাধারণ নিরীহ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে সেটা হয়নি। আর তা ছাড়া পাকিস্তান শুধু স্বীকার করেছে ভারত আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে, কোনো শিবির ধ্বংস করেছে, সেটাও স্বীকার করেনি।

আর তা ছাড়া ভারতের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, শুধু জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ করে অসামরিক অভিযান করেছে তারা। বিদেশ বাহিনী লক্ষ্য তাদের ছিল না। সুতরাং রাষ্ট্রপুঞ্জে অভিযোগ জানানোর বেশি পাকিস্তানের বিশেষ করার নেই বলেই মনে করছেন তাঁরা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.