কুখ্যাত জঙ্গির মধ্যস্থতায় ছাড়া পেয়ে গেলেন খুনে অভিযুক্ত তিন পুলিশ আধিকারিক

0
Jail
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: খাতায় কলমে জেলে বন্দি থাকলেও, কুখ্যাত জঙ্গি তথা লস্কর-ই-তৈবার প্রধান হাফিজ সঈদের প্রভাব পাকিস্তানে এখনও যথেষ্ট রয়েছে।

এই জঙ্গি নেতার মধ্যস্থতায় ছাড়া পেয়ে গেলেন পুলিশি হেফাজতে খুনে অভিযুক্ত তিন পুলিশ আধিকারিক। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসার পর তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

এটিএমে চুরিতে অভিযুক্ত সালাহউদ্দিন আয়ুবিকে হেফাজতেই খুনের অভিযোগ উঠেছিল তিন পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে। সেই মামলার শুনানি ছিল অতিরিক্ত জেলা আদালতে। সেই শুনানি শেষে ওই তিন জনকে মুক্তি দেন বিচারক জাহিদ হুসেন বখতিয়ার।

মুম্বই জঙ্গি হামলার মূল ষড়যন্ত্রকারীর ‘ইচ্ছে’তেই ওই তিন জন মুক্তি পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন সালাহউদ্দিনের পরিবার।

গত আগস্টে পুলিশি হেফাজতে অত্যাচারের শিকার হয় সালাহউদ্দিন। বিশেষ ভাবে সক্ষম সালাহউদ্দিনের ওপরে মানসিক এবং শারীরিক অত্যাচার করা হয় বলে তার পরিবারের অভিযোগ।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই পাকিস্তান জুড়ে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। ওই পুলিশ আধিকারিকদের চরম শাস্তি দাবি করে পথে নামেন সাধারণ মানুষ। চাপে পড়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা শুরু করা হয়।

ওই পুলিশ আধিকারিকরা যে জেলে বন্দি ছিলেন সেই কোট লখপত জেলেই রাখা হয় অভিযুক্তদের। জেলের মধ্যেই সালাহউদ্দিনের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন সঈদ।

আরও পড়ুন দূষণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশেষ ব্যবস্থা চালু হল দিল্লিতে

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা তুলে নেওয়ার জন্য মৃতের পরিবারকে রাজি করান সঈদ। বদলে পাক প্রশাসনকে জানান, যে গুজরানওয়ালায় মৃতের বাড়িতে যেন বিনামূল্যে গ্যাস পরিষেবা দেওয়া হয় আর তাদের বাড়ির সামনের রাস্তাটা যেন মেরামত করে দেওয়া হয়।

এর পরেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যাবতীয় মামলা প্রত্যাহার করেন নেন মৃতের পরিবার।

এই ঘটনা থেকেই প্রমাণিত হয়ে যায়, মুখে যা-ই বলুক, সন্ত্রাসবাদী সংগঠন এবং তাদের নেতৃত্বকে ‘মেনে চলা’ ছাড়া, পাকিস্তান সরকার একটুও এগোতে পারবে না।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.