Pornstar

ওয়েবডেস্ক: এই তো বছরখানেক হল মার্কিন মুলুকের প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। বর্ষপূর্তির সেই রেশের মাঝেই বিনা মেঘে বজ্রপাত! শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা-কল্পনা, পরের বারের নির্বাচনে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারেন কে! খবর বলছে, খুব সম্ভবত ২০২০ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরোধী হয়ে ভোটে দাঁড়াবেন ডাকসাইটে পর্নস্টার শেরি দে ভিলে!

চমকে উঠলেন?

শেরির বক্তব্য জানলে চমক বাড়বে বই কমবে না। “ট্রাম্প যখন ভোটে দাঁড়ালেন, তখন আমার মনে হয়েছিল ব্যাপারটা একটা বদ রসিকতা! কেউই ওঁকে ভোট দেবেন না! কিন্তু সেই তো তিনি জিতলেন! তা যদি হয়, তবে আমার আর ভোটে দাঁড়াতে বাধা কোথায়?” রাখঢাক না করেই বলছেন সুন্দরী। আরও এক ধাপ এগিয়ে জানাচ্ছেন খোলাখুলি- “সত্যি বলতে কী, ট্রাম্পকে দেখেই তো আমি অনুপ্রেরণা পেলাম!”

অবশ্য ব্যাপারটা এখনও অনেকটাই রয়ে গিয়েছে পরিকল্পনার স্তরে। কী ভাবে ধাপে ধাপে এগোবেন শেরি, তা এখনও নিশ্চিত নয়। তবে খবর বলছে, ইতিমধ্যেই প্রেসিডেন্ট পদের জন্য একটা ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেলেছেন বছর ৩৯-এর এই নারী। তার নাম রাখা হয়েছে পর্নস্টারফরপ্রেসিডেন্ট.কম। সেই ওয়েবসাইটের জন্য আপাতত একটা ভিডিও তৈরিতে ব্যস্ত তিনি। সেই ভিডিওয় তাঁর সঙ্গে দেখা যাবে র‍্যাপার কুলিওকে। থাকবেন প্রাক্তন মল্লযোদ্ধা ভিজিল এবং একঝাঁক পর্ন-তারকাও। র‍্যাপার কুলিওকে তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ‘রানিং মেট’ হিসাবে চান। অর্থাৎ শেরি জিতলে কুলিও হবেন ভাইস প্রেসিডেন্ট।

কিন্তু জনসমর্থন? সেটা কি থাকবে শেরির পক্ষে?

“মানুষ যদি চমক চায়, তবে আমার চেয়ে ভালো সেটা আর কেউ দিতে পারবে না! পাশাপাশি, ট্রাম্পকেও মার্কিন প্রেসিডেন্টের পদ থেকে উৎখাত করা যাবে”, সাফ জবাব শেরির!

দেখা যাক, টুয়েন্টি-টুয়েন্টির বছরে এই এক ঢিলে দুই পাখি মারার খেলা কেমন উপভোগ করেন মার্কিন জনতা!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here