President Trump

ওয়েবডেস্ক: উপহাস করছেন ঠিকই কিন্তু যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে গর্জে ওঠা প্রতিবাদের নয়া অঙ্গন #মিটু নিয়ে যথেষ্ট মানসিক তাড়নায় ভুগছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তিনি গত বুধবার (আমেরিকায়) একটি সভায় মন্তব্য করেছেন, “সেখানে একটি অভিব্যক্তি আছে, কিন্তু #মি টু-র নিয়ম অনুযায়ী আমি আমার নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করার অনুমতি পাচ্ছি না”। অর্থাৎ তিনি ব্যক্ত করতে চেয়েছেন তাঁর নিজস্ব বাধ্যবাধকতার বিষয়গুলিকে। যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর এই নতুন ভাষা #মি টু নিয়ে তিনি ঠিক যে ধরনের বাক্যাংশ ব্যবহার করতে চান, নিয়মের শিকার হয়ে তিনি তা করতে পারছেন না।

এ ব্যাপারে অবশ্য ট্রাম্পের একান্ত ব্যক্তিগত কারণই সম্পূর্ণ ভাবে দায়ী। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যৌন হেনস্থার অভিযোগকে কেন্দ্র করে গত বছর দুয়েক ধরেই #মি টু জারি রয়েছে। সে বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। হয়তো ওই বাধ্যবাধকতার কথাই বলতে চেয়েছেন ট্রাম্প।

গত সপ্তাহেও ট্রাম্প আক্ষেপ করে বলেছিলেন, “আমেরিকার তরুণ সমাজের কাছে একটা ভয়ঙ্কর সময় চলছে। কারণ, কেউ একজন কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর পরই সমাজে তিনি অপরাধী হিসাবে চিহ্নিত হয়ে যাচ্ছেন”। তবে তাঁর বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট তিনটি অভিযোগ নিয়ে আদালতের পর্যবেক্ষণ বজায় থাকলেও তিনি কিন্তু #মি টু নিয়ে ব্যঙ্গ করতে ছাড়ছেন না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন