সিঁড়ি থেকে গড়িয়ে পড়ে পোশাকেই মলত্যাগ, পুতিনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে চাঞ্চল্যকর দাবি রিপোর্টে

0
ভ্লাদিমির পুতিন। প্রতীকী ছবি

কখনও ক্যানসার, কখনও আবার স্নায়ুর জটিল রোগ। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের (Vladimir Putin) শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়ার খবরের মধ্যেই আরেক চাঞ্চল্যকর সংবাদ। নিজের সরকারি বাসভবনের সিঁড়ির পাঁচটি ধাপ থেকে তিনি পড়ে গিয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে বিভিন্ন মিডিয়া রিপোর্টে।

পড়ে গিয়ে অনিচ্ছাকৃত মলত্যাগ

ক্রেমলিন-বিরোধী টেলিগ্রাম চ্যানেলের উদ্ধৃতি দিয়ে নিউইয়র্ক পোস্টের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিজের বাসভবনে পা পিছলে সিঁড়ি থেকে পড়ে গিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। সিড়ির পাঁচ ধাপ থেকে তিনি পিছলে পড়ে যান এবং সরাসরি কোমরে আছাড় খেয়ে পড়েন। কোলন ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ায় এমনিতেই তাঁর পাকস্থলিতে সমস্যা রয়েছে। পড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি অনিচ্ছাকৃত ভাবে মলত্যাগ করে ফেলেন।

ঘটনার সঙ্গে সঙ্গেই নিরাপত্তারক্ষীরা অবিলম্বে তাঁর সাহায্যের জন্য ছুটে আসেন। জেনারেল এসভিআর বলেন, “তিনজন দেহরক্ষী প্রেসিডেন্টকে বিছানায় যেতে সাহায্য করেছিলেন। তাঁরাই প্রেসিডেন্টের বাসভবনে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকদের ডেকে পাঠান”। তিনি আরও জানান, “পরিস্থিতি সংকটজনক নয়। প্রেসিডেন্টের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। তিনি নিজেই হাঁটাচলা করতে পারছেন। তবে কোমরের ব্যথার কারণে বসতে গেলে কিছুটা অস্বস্তি লাগছে”।

স্লিপ-প্রুফ জুতো পরেন পুতিন

এমনিতে ইউক্রেনের সঙ্গে চলমান যুদ্ধের আবহে পুতিনের ক্যানসার এবং পারকিনসন্স রোগ নিয়ে জল্পনা ছড়িয়েছে। চ্যানেলটির মতে, অনিচ্ছাকৃত ভাবে মলত্যাগ কারণ সম্ভবত তাঁর পাকস্থলী এবং অন্ত্রের ক্যানসার। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্টের পড়ে যাওয়ার কারণ নির্ধারণের জন্য একটি বিশেষ তদন্ত করা হয়েছে। এমনিতে পুতিন স্লিপ-প্রুফ জুতো পরেন।  ওই জুতোটির তল এমনভাবে তৈরি, যাতে কোনওভাবে পা পিছলে না যায়। বরফের দেশে এই ধরনের জুতো পাওয়া যায়। পাশাপাশি তাঁর সরকারি বাসভবনের সিঁড়িও নিরাপদ বলে মনে করা হয়েছে।

সামনে চেয়ার বাঁচানোর চ্যালেঞ্জ

একাংশের মতে, ইউক্রেন অভিযানে বিপুল ক্ষয়ক্ষতির মধ্যে নিজের চেয়ার বাঁচাতে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছেন ৭০ বছর বয়সি পুতিন। ১৯৬২ সালে কিউবান ক্ষেপণাস্ত্র সংকটের পর থেকে পশ্চিমী দেশগুলির সঙ্গে এই প্রথম তিক্ত সম্পর্কের মুখোমুখি হয়েছে রাশিয়া। এরই মধ্যে গত বুধবার অর্থাৎ ৩০ নভেম্বর ওই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেছে পশ্চিমী সংবাদমাধ্যমগুলি। তাঁদের প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ওই দিন প্রেসিডেন্ট প্যালেসের সিঁড়ি দিয়ে নীচে নামার সময় হঠাৎই পা পিছলে নীচে গড়িয়ে পড়ে যান তিনি।

উল্লেখ্য, কয়েক দিন আগে বেশ কিছু রিপোর্টে দাবি করা হয়েছিল, তিনি কোলন ক্যানসারে আক্রান্ত। পাশাপাশি স্নায়ুর জটিল সমস্যাও রয়েছে। ক্যানসারের চিকিৎসার কারণে রুশ প্রেসিডেন্টের হাত কালো হয়ে গিয়েছে। এরই মাঝে পুতিনের ‘বডি ডাবল’ ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছিল রাশিয়ার বিরুদ্ধে। এই সব জল্পনার মধ্যেই জনসমক্ষে ততটা আর দেখা যাচ্ছে না পুতিনকে। সরকারি অনেক কর্মসূচিতেও অনুপস্থিত থাকছেন পুতিন।

মাসকয়েক আগে শোনা গিয়েছিল, নিজের পায়ে ঠিক মতো দাঁড়াতে পারছেন না রুশ প্রেসিডেন্ট। যে কারণে চিকিৎসকরা তাঁকে বাইরে বেরোতে নিষেধ করেছেন। গত জুলাইয়ে ক্রেমলিনে একটি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অংশ নেন রুশ প্রেসিডেন্ট। নিউ ইয়র্ক পোস্ট-এর একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়, সেখানে পুরস্কার দেওয়ার সময় তাঁর হাত-সহ গোটা শরীর কাঁপছিল। এমনকী তিনি নিজের পায়ে দাঁড়াতেও পারছিলেন না।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন