যুগের অবসান! চলে গেলেন বিশ্ব রাজনীতির এক বর্ণময় চরিত্র

0

ওয়েবডেস্ক: ব্রিটিশ শক্তির বিরুদ্ধে স্বাধীনতা সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়ে সবার নয়নের মণি হয়ে ওঠা থেকে জাতীয় ভিলেন। সব কিছুই দেখতে হয়েছে তাঁকে। বিশ্ব রাজনীতির সেই বর্ণময় চরিত্র, জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে মারা গেলেন।

দীর্ঘ রোগভোগের পর শুক্রবার সিঙ্গাপুরের এক হাসপাতালে মারা গিয়েছেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। টুইটারে এই বার্তা দিয়ে মুগাবের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন জিম্বাবোয়ের বর্তমান প্রেসিডেন্ট এমার্সন নানগাগওয়া।

ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলনের প্রধান মুখ হয়ে উঠেছিলেন মুগাবে। তাই সাউথ আফ্রিকায় যেমন নেলসন ম্যান্ডেলা, রোডেশিয়ায় (বর্তমান জিম্মাবোয়ে) তেমনই ছিলেন মুগাবে। তাঁর নেতৃত্বের জেরে ১৯৮০ সালে স্বাধীনতা লাভ করে রোডেশিয়া। কিছু দিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে রোডেশিয়া নাম বদলে জিম্বাবোয়ে নামকরণ করা হয় তাঁর দেশের।

১৯৮৭ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী থাকার পর সংবিধান সংশোধন করেন তিনি। এবং প্রেসিডেন্টের আসনে বসে পড়েন। শুরুর বছর পর জনদরদী সব প্রকল্প নিয়েই এগোচ্ছিলেন তিনি। স্বাধীনতার আগের পর্যন্ত চরম অত্যাচারিত কৃষ্ণাঙ্গদের মুখ চেয়েই বেশির ভাগ প্রকল্প ছিল তাঁর। স্বাস্থ্য এবং শিক্ষা ব্যবস্থা ঢেলে সাজার ফলে দেশ জুড়ে প্রশংসিত হয়েছিলেন তিনি।

কিন্তু ২০০০ সালের পর থেকেই তাঁর বিভিন্ন প্রকল্প বিতর্কের সৃষ্টি করে। ক্রমে দেশের রাশ আলগা হতে শুরু করে। বাড়তে থাকে বেকারত্ব, দুর্নীতি। এমনকি মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগও ওঠে তাঁর এবং তাঁর পরিচালিত সরকারের বিরুদ্ধে। মুগাবে-বিরোধী আন্দোলনও শুরু হয় দেশ জুড়ে।

আরও পড়ুন আপ ছাড়লেন নেত্রী, কংগ্রেসে যোগদানের সম্ভাবনা

অবশেষে তিন দশক ক্ষমতায় থাকার পর ২০১৭ সালে একটি রক্তপাতহীন অভ্যুথানের মধ্যে দিয়ে তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করে জিম্বাবোয়ে সেনা। কিন্তু তাঁর বয়সের কথা মাথায় রেখে বৃদ্ধ মুগাবেকে গ্রেফতার করা হয়নি। কিছু দিনের মধ্যে নিজের দল ‘জানু-পিএফ’-এর দাবিমতো, দলের প্রধানের পদ থেকেও সরে দাঁড়ান তিনি। তার পরেই ধীরে ধীরে লোকচক্ষুর আড়ালে চলে যান মুগাবে।

১৯২৪ সালে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার ফলে ১৯৬৪ থেকে ১৯৭৫ পর্যন্ত কারাবাসও হয়েছিল তাঁর। এ হেন মুগাবের মৃত্যুতে শোকের ছায়া বিশ্ব রাজনীতিতে।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.