আঙ্কারা : রাষ্ট্রদূত আন্দ্রেই কারলভের হত্যার এক দিন পর রাশিয়ার গোয়েন্দাবাহিনী তুরস্কে পৌঁছোল। এই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন তাঁরা। তুরস্ক সরকার এই ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মগুরু ফতেউল্লাহ গুলেনকে অভিযুক্ত করছে। সোমবার একটি চিত্র প্রদর্শনীতে বক্তব্য পেশ করার সময় মেভলুত মার্ট আলতিনতাস নামে তুরস্কের এক ২২ বছরের পুলিশকর্মী আন্দ্রেই কারলভকে পেছন থেকে গুলি করে হত্যা করে। সেই সময় সে কর্তব্যরত ছিল না। ঘটনায় স্তব্ধ হয়ে যায় মস্কো ও আঙ্কারা। এই ঘটনায় আটক করা হয়েছে ছয় জনকে। এঁদের মধ্যে রয়েছেন আলতিনতাসের বাবা, মা, কাকা এবং বোন।  

যদিও হত্যাকাণ্ডের পর সিরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে রাশিয়া, তুরস্ক ও ইরানের বিদেশমন্ত্রকের বৈঠকের কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। এই হত্যাকাণ্ডের পর মঙ্গলবার ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হয় মস্কোয়। বৈঠকে তুরস্কের বিদেশমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগ্লু এই জঘন্য হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী করেন গুলেন গোষ্ঠীকে। এই গোষ্ঠী জুলাইয়েই সামরিক অভ্যুত্থান করার চেষ্টা করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের বিদেশ সচিব জন কেরির সঙ্গে কথা বলার সময় কাভুসগ্লু আরও বলেন, তুরস্ক আর রাশিয়া জানে এই হামলার পেছনে রয়েছে ফেটো (এফইটিও)।

অন্য দিকে, গুলেন এর আগেই অবশ্য এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ঘটনাটি খুবই   আকস্মিক। 

মঙ্গলবার রাতভর আঙ্কারায় যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের বাইরে গোলাগুলি চলে। তাতে এক জন গুলিবিদ্ধ হন। সারা তুরস্ক জুড়ে কড়া সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here