dress up as ‘bus’

ওয়েবডেস্ক: সেতুটি প্রায় ২ কিমি লম্বা। সেই হিসেবে বিশ্বের দ্বাদশ দীর্ঘতম ঝুলন্ত সেতু এই রাশিয়ার জলোটয় সেতু। ২০১২ সালে এপিইসি সম্মেলন উপলক্ষে ওই সেতু তৈরি করা হয়েছিল। বছর তিনেক বাদে, ২০১৫ সালে ওই সেতু দিয়ে হেঁটে চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। বিপদে পড়েন সংলগ্ন ভ্লাদিভস্তক এলাকার বিশাল সংখ্যক মানুষ।

তবে শুধু যান চলাচলের জন্য অনুমোদন প্রাপ্ত এই সেতুতে কী ভাবে হেঁটে পার হওয়া যায়, তেমন চিন্তা একেবারেই ঝেড়ে ফেলেননি কেউ কেউ। ওই সেতু ব্যবহার করলে ওপারে যেতে সময় লাগে অনেক কম। ফলে সেতু থাকতেও তা যদি গাড়ির অভাবে ব্যবহার করা না যায়, চিন্তার বিষয় তো বটেই!

স্থানীয় মানুষ সরকারি নির্দেশের বিরোধিতা করে কমিটি পর্যন্ত গড়েছেন। সেই কমিটির ব্যানারে চলে প্রতিবাদ আন্দোলন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয় না। অগত্যা, খুঁজে নেওয়া হয়েছে বিকল্প ব্যবস্থা। গাড়ি নেই তো কী হয়েছে, গাড়ি বানাতে আর কতটা সময় লাগে?

কার্ডবোর্ডের তৈরি বাস নিয়েই সেতুতে সওয়ার হলেন ৪ স্থানীয়। তবে রাতের বেলায় কিছুটা এগোতেই আবছা আলোয় ধরাও পড়ে গেলেন। সেতুর দায়িত্বপ্রাপ্ত নিরাপত্তা কর্মী ৪ জনকে জিজ্ঞাসা করেন, “এখনই পিছনের দিকে ফিরে যান…”ইত্যাদি।

তবে যিনি ভিডিওটি তুলছিলেন, সেই মহিলার মন্তব্য অবশ্য বেশ সরস। তিনি বলেন-“তাঁরা কোথা থেকে আসছেন। খুব সুন্দর একটা শিল্প…এটা সত্যিই একটা শিল্প। কেন তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে”? বাকিটা দেখুন ভিডিওয়-

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here