ওয়েবডেস্ক: ক্ষমতা দখল বা ক্ষমতা সংহত করার জন্য রাজপরিবারের বিভিন্ন লড়াইয়ের কাহিনি আমরা ইতিহাসে পড়েছি, পড়েছি রূপকথাতেও। কিন্তু সেই ইতিহাস যে এভাবে একবিংশ শতকেও ফিরে আসবে, তা কে জানত। আসলে সাম্রাজ্য যতদিন থাকবে, সম্পদ যতদিন থাকবে, ততদিন রাজপরিবারে হিংসার ইতিহাস বারবার তৈরি হবে। এ কথাই জানান দিল সৌদি আরব।

বাদশাহ মহম্মদ বিন সলমনের নেতৃত্বে শনিবার বিকেলেই দেশের দুর্নীতি দমন করতে তৈরি হল নতুন কমিশন। আর তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আটক করা হল সৌদির ১১ জন রাজপুত্র সহ বর্তমান এবং প্রাক্তন বেশ কিছু মন্ত্রীকে। একই দিনে রদবদল এল সৌদি ন্যাশানাল গার্ড, নৌ-বাহিনী এবং অর্থ মন্ত্রকের প্রধান পদেও।

গ্রেফতার হওয়া মন্ত্রীদের মধ্যে চারজন বর্তমানে দেশের বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বে রয়েছেন। সৌদি সংবাদ সংস্থা আল-অ্যারাবিয়া জানিয়েছে ২০০৯ সালে সৌদির বন্যার ঘটনার তদন্তের লক্ষ্যেই এক কমিশন গঠন করা হয়েছে। সে দেশের সরকারি সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর পাওয়া গিয়েছে, জনগণের টাকা বাঁচানো এবং ক্ষমতার অপব্যবহার করা দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের শাস্তি দিতেই সরকারের এই সিদ্ধান্ত। তবে গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের নামের তালিকা এখনও আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা করেনি সৌদি সরকার।

সূত্রের খবর অনুযায়ী আটক হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তিদের একজন- যুবরাজ আলবালিদ বিন তালাল। নতুন দুর্নীতি দমনের নিয়ম অনুযায়ী যুবরাজ সলমন চাইলে যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেন, এবং সেই ব্যক্তির দেশের ভেতরে এবং বাইরে ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে পারেন। সলমন যুবরাজ পদে অভিষিক্ত হওয়ার পরই রা পরিবারের অন্যান্য ক্ষমতাকেন্দ্রগুলিকে ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করে চলেছেন। তারই চূড়ান্ত প্রয়াস দেখা গেল গ্রেফতারির সিদ্ধান্তে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here