নিউইয়র্ক : এটা কি আমেরিকার জাতি-বর্ণবিদ্বেষের আরও একটা ছবি?

ওয়াশিংটনের কেন্ট-এ সাউন্ড ক্রেডিট ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের একটি শাখা থেকে বার করে দেওয়া হল এক জন মহিলাকে। অপরাধ তিনি হিজাব পরে শাখার ভেতরে ঢুকেছিলেন।

এক জন মুসলিম-আমেরিকান মহিলা, নাম জামেলা মহম্মদ। গাড়ির টাকা মেটানোর জন্য তিনি শুক্রবার সকালে ব্যাঙ্কটির ওই শাখায় ঢোকেন। ঢোকামাত্রই তাঁকে তাঁর মাথার ঢাকা খুলে ফেলতে বলা হয়। আর ঢাকাটি না খুললে তাঁকে পুলিশে দেওয়া হবে বলেও হুমকিও দেওয়া হয়। কারণ ব্যাঙ্কের নিয়ম টুপি, হুড দেওয়া পোশাক আর সানগ্লাস পরে ভেতরে ঢোকা নিষেধ।

হেনস্থা হওয়ার সেই মুহূর্তের কিছুটা জামেলা ধরে রাখেন তাঁর মোবাইল ফোনে। সেখানে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে তাঁকে নানা ভাবে ধমকানো হচ্ছে। অথচ জামেলা প্রতিটা সময় যথেষ্ট নম্র ও ভালোভাবে তাঁদের বোঝানোর চেষ্টা করছেন। কিন্তু ব্যাঙ্কের ওই কর্মীরা বোঝবার পাত্রই নন। উলটে আরও খারাপ ব্যবহার করে তাঁকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য করেছেন তাঁরা। অথচ ঠিক সেই মুহূর্তে আরও তিন জন ব্যক্তি শাখার ভেতরেই রয়েছেন, যাঁদের মাথায় টুপি, পরনে হুড দেওয়া পোশাক। তাঁদের দু’জন ইতিমধ্যেই পরিষেবা পেয়েছেন। কোনো রকম বাধা দেওয়া হয়নি তাঁদের ভেতরে ঢুকতে।

জামেলা বার বার বলেছেন, তিনি ব্যাঙ্কের নিয়ম জানেন। এর আগেও তিনি তা মেনেই চলেছেন। কিন্তু এ দিন শুক্রবার, তাঁদের প্রার্থনার দিন। তাই তাঁকে এটা পরতে হয়ছে। হিজাব পরলেও তাঁর মুখ সম্পূর্ণই দেখা যাচ্ছে।

 


ঘটনার দৃশ্যটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর সাউন্ড ক্রেডিট ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে। জানানো হয়েছে, সব গ্রাহকের সঙ্গে সমান ব্যবহার করা উচিত – এটাই তাদের নীতি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here