space

ওয়েবডেস্ক: এটাই কি হতে চলেছে পৃথিবীর অষ্টম আশ্চর্য?

হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। সেই সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ায় যে বাড়বে পর্যটকের আনাগোনা, সেটাও হিসেবের মধ্যেই পড়ে। কেননা, দক্ষিণ কোরিয়াতেই আসন্ন শীতকালীন অলিম্পিকের জন্য নির্মাণ করা হচ্ছে এই বাড়ি। জানা গিয়েছে, কালোর চেয়েও যা বেশি কালো, সেই ভেন্টাব্ল্যাক উপাদানে গড়ে উঠবে বাড়িটি।

কী এই ভেন্টাব্ল্যাক?

দক্ষিণ কোরিয়ার স্থপতিরা জানিয়েছেন, এই ভেন্টাব্ল্যাককে তুলনা করা হয় মহাকাশের কৃষ্ণ গহ্বরের সঙ্গে। সেখানে যেমন শুধুই কালোর রাজত্ব, এই উপাদানের ক্ষেত্রেও তাই। বিশেষ ভাবে কার্বন দিয়ে তৈরি নল পুড়িয়ে এই উপাদান তৈরি করা হয়। ফলে তা শুষে নেয় শতকরা ৯৯.৯৬ আলো। তার জন্যই এই উপাদানটিকে কালো দেখায়। বাস্তবে এর কোনো রঙই নেই!

ইতিমধ্যেই এই ভেন্টাব্ল্যাকের নাম উঠেছে গিনেস বুক অফ রেকর্ডে। গিনেস এই উপাদানটিকে মানুষের তৈরি সবচেয়ে কালো বস্তুর আখ্যা দিয়েছে। এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন বাড়িটির স্থপতি আসিফ খান, “এটাই হতে চলেছে প্রযুক্তির নয়া বিস্ময়। বাড়িটি দেখলে মহাকাশের কথাই মনে পড়বে। আর বাড়ির ভিতরে পা রাখলে মনে হবে ঠিক যেন কৃষ্ণ গহ্বরের মধ্যে দাঁড়িয়ে রয়েছেন!”

এ বেশ বোঝা যাচ্ছে, মহাকাশ যেমন আলোর অভাবে কালো দেখায়, তেমনটাই হতে চলেছে এই বাড়ির ক্ষেত্রেও। সেই জন্যই বলা হচ্ছে, এ বাড়ি যেন ঠিক মহাকাশের উপাদানে তৈরি। কিন্তু মহাকাশে যেমন অগণিত নক্ষত্রেরা তৈরি করে আলোক-আলপনা, সেই ব্যাপারটা কী ভাবে আনা যাবে বাড়ির সাজে?

স্রেফ আলোর খেলায়! খান জানিয়েছেন, এই বাড়িটির ভিতরে-বাইরে থাকবে অসংখ্য ছোটো ছোটো আলো। যার কারসাজিতে মনে হবে, একরাশ নক্ষত্র ঘিরে রেখেছে পরিপার্শ্বিক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here