ওয়েবডেস্ক: শ্রীলঙ্কা পুলিশ মঙ্গলবার গ্রেফতার করল সে দেশের শীর্ষ পুলিশকর্তা এবং প্রাক্তন মুখ্য প্রতিরক্ষা আধিকারিক। সরকারি মুখপাত্র রুবান গুণাশেখর এ দিন জানান, সম্প্রতি ইস্টার অনুষ্ঠানে জঙ্গি হামলায় ২৫৮ জনের নির্মম মুত্যুর ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল পুজিৎ জয়সুন্দর ও প্রাক্তন প্রতিরক্ষা সচিব হেমাসিরি ফার্নান্দোকে আটক করা হয়েছে। ওই হামলা রুখতে নিরাপত্তা সংক্রান্ত ব্যর্থতার কথা অ্যাটর্নি জেনারেল বলার পর দিনই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ হিসাবে তাঁদের আটক করা হয়। মানবতার বিরুদ্ধে এ ধরনের হামলার নেপথ্যে সতর্কতা আরও জোরদার করার কথাও বলেছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

গোয়েন্দারা খবর পান, দু’জনেই বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছিলেন। সেখান থেকেই গোয়েন্দারা তাঁদের গ্রেফতার করে। অ্যাটর্নি জেনারেল দাপুল্লা দে লিভারার নির্দেশনা অনুসরণ করে ওই হামলা এবং ষড়যন্ত্রের দায়ে তাঁদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা চেপে বসতে পারে খবর ছিল ওই দুই আধিকারিকের কাছেও।

ডি লিভারা গত সোমবারই জানান, সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির গতিবিধির উপর সঠিক নজরদারি রাখার ব্যর্থতা হিসাবেই ওই হামলা চলেছে।

অপরাধমূলক উদাসীনতার অভিযোগে অ্যাটর্নি জেনারেল তাঁদের ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হাজিরার আগে পুলিশের বর্তমান কর্তাকে একটি চিঠি লিখেছেন। সেখানে তিনি মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে ওই দুই আধিকারিককে অপরাধী হিসাবে গণ্য হওয়ার কথা জানান।

[ শ্রীলঙ্কায় গির্জা, হোটেলে ধারাবাহিক বিস্ফোরণ ]

একই সঙ্গে জানা গিয়েছে ওই হামলায় আরও ন’জন পুলিশ আধিকারিকের ব্যর্থতাজনক ভূমিকা নিয়েও তাঁদেরও বিচারপ্রক্রিয়ার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here