পাকিস্তানের পড়ুয়াদের জন্য কোরান বাধ্যতামূলক করার নির্দেশকে একটি বিষয়ে ইতিবাচক বললেন তসলিমা

0
Taslima Nasreen

ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশের প্রথম থেকে দ্বাদশশ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের জন্য কোরান-কে বাধ্যতামূলক বিষয় হিসাবে পঠন-পাঠনের নির্দেশ দিয়েছেন। এই ঘটনায় বিভিন্ন মহল থেকে উঠে এসেছে বিভিন্ন মত। তবে বাংলাদেশের সাহিত্যিক তসলিমা নাসরিন এমন সিদ্ধান্তকে দুর্ভাগ্যজনক আখ্যা দিয়েও একটি বিষয়ে ইতিবাচক হিসাবে মনে করছেন।

তসলিমা স্পষ্টতই বলেছেন, ইমরান একজন ইসলাম মতালম্বী। সে কারণেই সম্ভবত তিনি নিজের ধর্মগ্রন্থকে পড়ুয়াদের জন্য বাধ্যতামূলক করেছেন। এটা মোটেই কোনো ভালো আইন নয়। তবে এর ফলে একটা ইতিবাচক ঘটনা ঘটলেও ঘটে যেতে পারে বলে মনে করেন বিতর্কিত এই সাহিত্যিক। তসলিমা নিজের টুইটারে লিখেছেন, “প্রাচীন আরবীয় এই নারী-বিরোধী রূপকথার গল্পের বই পড়তে পড়তেই হয়তো পড়ুয়ারা নাস্তিক হয়ে উঠতে পারে”।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের সরকারি এবং বেসরকারি উভয় ধরনের স্কুলগুলিতেই প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের জন্য কোরান বাধ্যতামূলক বিষয় হিসাবে নির্দেশ জারি করেছে সে দেশের নতুন সরকার।

তবে তসলিমা মনে করেন, সকল ধর্মের বিষয়েই পড়ুয়াদের শিক্ষা দেওয়া দরকার। কারণ অধিকাংশ ব্যক্তি তাঁর ধর্ম সম্বন্ধে অনেক কিছুই জানেন না। এ বিষয়ে তিনি অন্য একটি টুইটে নিজের মত ব্যক্ত করেছেন।


পড়তে পারেন: রাস্তা আটকে নমাজ পড়া রাজনৈতিক ইসলাম: তসলিমা নাসরিন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন