ফের হামলা ফ্রান্সে, জাতীয় দিবসে মৃত ৮৪

0

খবর অনলাইন: আট মাস আগের দুঃসহ স্মৃতি ভুলে ক্রমে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছিল ফ্রান্স। একটুর জন্য ইউরো কাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া মিস হলেও নিজেদের দলের খেলায় এমনিতেই খুশি ছিলেন ফ্রান্সের সাধারণ মানুষ। সেই সঙ্গে বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ছিল  ফ্রান্সের জাতীয় দিবস, ‘বাস্তিল ডে’র জাঁকজমক। আনন্দে মেতেছিলেন ফরাসিরা। বাদ যায়নি দেশের সমুদ্র শহর নিসেও। এই আবহে তাল কাটল জঙ্গি হানা।

বৃহস্পতিবার রাতে, ‘বাস্তিল ডে’ উপলক্ষে নিসের সমুদ্রসৈকতে বাজির প্রদর্শনী দেখতে ভিড় করেছিলেন প্রচুর মানুষ। প্রদর্শনী শেষে তাঁরা যখন বাড়ি ফিরছিলেন, সেই সময়েই ভিড়ের মধ্যে একটি সাদা রঙের ট্রাক ঢুকে পড়ে। প্রথমে ট্রাক থেকে গুলি ছোড়া হয়। গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান কয়েক জন। এর পরেই ভিড়ের মধ্যে দিয়ে ট্রাক চালিয়ে দেওয়া হয়। প্রচণ্ড গতিতে থাকা ট্রাকটির ধাক্কায় ছিটকে পড়েন আরও কিছু মানুষ। ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে আরও কয়েক জনের প্রাণহানি ঘটে। পুলিশের দাবি ট্রাকটি বারুদে ঠাসা ছিল। পুলিশের আরও দাবি, ঘটনাস্থলেই ট্রাকচালককে গুলি করে মারা হয়েছে।

এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৮৪ জনের। কমপক্ষে ৫০ জন আহত, যাঁদের মধ্যে ১৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাই মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ফ্রাঁসোয়া ওলাঁ জানান, “এই হামলার চরিত্র দেখে মনে হচ্ছে এটি জঙ্গি হানা। বেশ কয়েক বছর ধরেই আইএস জঙ্গিদের নিশানায় রয়েছে ফ্রান্স। জঙ্গি হানা রুখতে আমাদের যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে”। গত বছর নভেম্বরে প্যারিসে জঙ্গি হানার পর থেকে ফ্রান্স জুড়ে যে ‘জরুরি অবস্থা’ জারি আছে, সেটি আগামী ২৬ জুলাই তুলে নেওয়ার কথা থাকলেও, গত রাতের হামলার পর আরও তিন মাস সেটি বাড়ানো হয়েছে।

বিশ্বজুড়ে এই ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। ইংল্যান্ডের নবনিযুক্ত প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে ফ্রান্সের জনগণের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছেন। ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ জানিয়েছেন ফ্রান্সে নিযুক্ত দেশের রাষ্ট্রদূত সেখানকার ভারতীয়দের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও ভারতীয়ের হতাহতের খবর নেই। প্যারিসের দূতাবাসে একটি হেল্পলাইন খোলা হয়েছে। তার নম্বর +৩৩১৪০৫০৭০৭০   

আপাতত কোনও জঙ্গি সংগঠন ঘটনার দায় স্বীকার না করলেও, ঘটনার সাথে আইএস যোগ উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার আইএস-এর যুদ্ধমন্ত্রী শিশানি-র মৃত্যুর কথা স্বীকার করে নিয়েছে আইএস।      

ছবি: সৌজন্য এএফপি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন