সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যোগ থাকার দরুন অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার সংখ্যা বাড়িয়েই চলেছে টুইটার। গত ছ’ মাসে আরও ২ লক্ষ ৩৫ হাজার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই নিয়ে ২০১৫ সালের মাঝামাঝি থেকে বন্ধ করে দেওয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ লক্ষ ৬০ হাজার। টুইটার-এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই সামাজিক মাধ্যমটিকে চরমপন্থী উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা থেকে সাধারণ মানুষকে দূরে রাখার জন্যই অ্যাকাউন্ট বন্ধের অভিযান চালানো হচ্ছে।

এক বিবৃতিতে টুইটার বলেছে, “সারা পৃথিবী জুড়ে নৃশংস ঘৃণ্য সন্ত্রাসবাদী হামলা বেড়েই চলেছে। গোটা বিশ্ব এর সাক্ষী। আমরা এই ধরনের ক্রিয়াকলাপের তীব্র নিন্দা করি এবং আমাদের মঞ্চ থেকে সন্ত্রাসবাদ বা হিংসার প্রচার নির্মূল করতে আমরা দায়বদ্ধ।”

টুইটার চায়, ওয়েবে মুক্ত চিন্তার প্রচার বাড়াতে এবং প্রসার ঘটাতে। কিন্তু এটা করতে দিতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে, বর্ণবাদী এবং চরমপন্থী গোষ্ঠীগুলি তাদের বক্তব্য প্রচার করার জন্য টুইটারের মঞ্চকে যথেচ্ছ ভাবে ব্যবহার করছে। এর ফলে বিভিন্ন বেসরকারি ও সরকারি সংস্থার সমালোচনার মুখে পড়ে টুইটার। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনও সমালোচনা করেন টুইটারের। এর পরেই টুইটার সন্দেহজনক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার অভিযানে নামে।           

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here