শিকাগো: বিমানের টিকিট থাকা সত্ত্বেও বিমানকর্মীদের জায়গা কম পড়ায় জোর করে উড়ান থেকে নামানো হয়েছিল চিকিৎসক ডেভিড দাওকে। ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের ৩৪১১ নম্বর উড়ানে এই ঘটনাটি ঘটেছিল এপ্রিলের ৯ তারিখ। উড়ান থেকে বলপূর্বক নামানোর চেষ্টায় গুরুতর আহত হন ওই চিকিৎসক। সহযাত্রীর ক্যামেরাবন্দী থাকা সেই ভিডিও ভাইরাল হতেই তোলপাড় হয় সারা পৃথিবী জুড়ে। এখন আইনি মামলা এড়াতেই চিকিৎসক দাও-এর সঙ্গে বোঝাপড়ায় এল ওই বিমান সংস্থা। বোঝাপড়ার অঙ্কটি যদিও গোপন রয়েছে।

ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যদিও বিমান সংস্থার পক্ষ থেকে প্রথমে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছিল এক জন নিরাপত্তাকর্মী ছাড়া বাকি সবাই নিয়ম মেনেই কাজ করেছে। তবে ঘটনার জেরে উড়ানের নিয়ম কানুনে কিছু পরিবর্তন আনতে বাধ্য হয়েছে ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স। চিকিৎসক দাও-এর পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, দু’পক্ষের মধ্যে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ বোঝাপড়া হয়েছে।

আর পড়ুন; যাত্রীকে রক্তাক্ত অবস্থায় বিমান থেকে নামানোর চেষ্টা, বিতর্কে উড়ান সংস্থা

বিমান সংস্থার তরফ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “৩৪১১ নম্বর উড়ানে ডঃ দাও-এর সঙ্গে যে দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে, তা আমরা বন্ধুত্বপূর্ণ ভাবে মিটিয়ে নিয়েছি, এবং একই সঙ্গে উড়ানের কিছু নিয়ম খুব শিগগির পালটাতে চলেছি। আমাদের ভাবনায় যাত্রী নিরাপত্তার কথাটাই অগ্রাধিকার পাবে।”

ইউনাইটেডের সিইও অস্কার মুনোজ-এর সিদ্ধান্তকে ‘ঠিক পদক্ষেপ’ বলে বর্ণনা করেছেন, দাও পক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি থমাস ডেমেট্রিয়ও। তিনি আরও বলেছেন, এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ উড়ান যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলার সময় ধৈর্য, সম্মান এবং শ্রদ্ধার মতো বিষয়গুলি মাথায় রাখবেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here