খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতের বিদেশসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলার সভাপতিত্বে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে আফগানিস্তান নিয়ে প্রস্তাব গৃহীত হল। আমেরিকার সেনা প্রত্যাহার এবং তালিবানের কাবুল দখলের পরে এই প্রথম রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব গৃহীত হল।

তবে রাশিয়া ও চিন প্রস্তাব গ্রহণে বিরত থাকে। ফলে ৫ স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ৩-২ বিভাজন হয়ে যায়। সব মিলিয়ে মোট ১৩ সদস্য রাষ্ট্র প্রস্তাবটি সমর্থন করে।

আমেরিকা, ব্রিটেন এবং ফ্রান্সের পক্ষ থেকে পেশ করা এই প্রস্তাবে নিরাপত্তা পরিষদ দাবি করেছে, আফগানিস্তানের মাটি থেকে অন্য কোনো দেশকে আঘাত করা বা আক্রমণ করার কোনো কাজ যেন না হয়। ওই দেশের মাটি যেন জঙ্গিদের ঘাঁটি না হয়ে ওঠে।

নিজেদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে তালিবান নেতৃত্ব সব ইচ্ছুক আফগান এবং বিদেশি নাগরিককে নিরাপদে কাবুল ছাড়তে দেবেন, এই প্রত্যাশা রাখা হয়েছে প্রস্তাবে। সেই সঙ্গে নারী-শিশু-সংখ্যালঘু-সহ সামগ্রিক ভাবেই নাগরিকদের মানবাধিকার রক্ষিত যেন থাকে, এই কথাও মনে করিেয় দেওয়া হয়েছে।

তবে রাশিয়া এই প্রস্তাব গ্রহণ না করায় কিছুটা অস্বস্তিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে ভারতের জন্য। তাদের দাবি, প্রস্তাবের খসড়া তৈরির সময়ে তাদের বক্তব্য গুরুত্ব পায়নি।

উল্লেখ্য, ১৫ অগস্ট তালিবানের কাবুল দখলের পরে নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতিতে তালিবান ও অন্য আফগান গোষ্ঠীর কাছে আহ্বান জানানো হয়েছিল, তারা যেন সন্ত্রাসবাদে মদত না দেয়। এর পরে দু’দিন আগের বিবৃতিতে ওই একই আহ্বান জানানো হয় শুধুমাত্র অন্য আফগান গোষ্ঠীগুলির কাছে। সেখানে তালিবানের নামোল্লেখ ছিল না।

ফলে আন্তর্জাতিক শিবির তালিবানকে ইতিবাচক বার্তা দিতে চাইছে কি না, সে প্রশ্ন ওঠে। আপাতত ভারত-সহ আন্তর্জাতিক শিবিরের প্রধান অগ্রাধিকার নিজের দেশের নাগরিকদের উদ্ধার করে আনা। সেই সঙ্গে আফগান নাগরিকেরা আশ্রয় নিতে চাইলে তাঁদেরও সাহায্য করা।

আরও পড়তে পারেন

এই প্রথম ৫৭ হাজারের উপরে সেনসেক্স, ভরসা বৃদ্ধির হার

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন