us shutdown

ওয়াশিংটন: তিন সপ্তাহে এই নিয়ে দ্বিতীয় বার। বাজেট নিয়ে সরকার এবং বিরোধীরা ঐক্যমত্যে না আসতে পারায় ফের শাটডাউন শঙ্কা যুক্তরাষ্ট্রে। যদিও শাটডাউনের পরিস্থিতি ঠেকাতে সাময়িক একটা বাজেট বিলে সম্মতি দিয়েছে মার্কিন সেনেট।

আগামী এক মাস পর্যন্ত সরকারের বাজেট বাড়ানোর জন্য বিল পাশের শেষ সময় ছিল বৃহস্পতিবার মধ্যরাত। কিন্তু এই সময়সীমার মধ্যে বাজেট বিলটি সেনেটে পাশ করানো যায়নি। তাই অচলাবস্থার মুখে পড়ে যুক্তরাষ্ট্র। এ রকম যে কিছু একটা হতে পারে সেটা আগে থেকেই আন্দাজ করেছিলেন হোয়াইট হাউসের আইনী বিষয়ক ডিরেক্টর মার্ক শর্ট। ওয়াশিংটন পোস্টকে তিনি বলেছিলেন, “সাময়িক অচলাবস্থার জন্য সরকার প্রস্তুত।” তবে এই আচলাবস্থা যে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মিটে যাবে সে কথাও বলেন তিনি।

উল্লেখ্য, তিন সপ্তাহ আগে যে কারণে শাটডাউন হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে, ঠিক একই কারণেই এ দিনের শাটডাউনটি হল। প্রায় সাত লক্ষ অভিবাসী শিশুকে কোনো ভাবেই ফেরত পাঠানো যাবে না, যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্র্যাটদের এই দাবি মানেনি রিপাবলিকানরা। দু’পক্ষের তীব্র মতবিরোধে সিনেটে সে বার পাশ হয়নি বাজেট। ফলে ‘শাটডাউন’ ঘোষণা করতে হয় যুক্তরাষ্ট্রে। উল্লেখ্য, শাটডাউন ঘোষণা করা হলে সরকারি আর্থিক অনুদান বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে থাকা অনেক দফতরই বন্ধ হয়ে যেতে পারে। বন্ধ হয়ে যেতে পারে জাতীয় উদ্যান এবং সরকারি স্তম্ভগুলি রক্ষণাবেক্ষণের কাজ।

সেই শাটডাউন আটকাতে দিন তিনেকের মধ্যে একটি বিলে সম্মতি দেয় সিনেট। কিন্তু স্বল্পস্থায়ী ওই বিলের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় এবং ট্রাম্প ও রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাটদের ফের মতানৈক্য তৈরি হয়। অগত্যা ফের শাটডাউন ঘোষণা করা হয় সে দেশে।

তবে পুরোপুরি আচলাবস্থা ঠেকাতে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতের পর ফের একটি সাময়িক বিলে সম্মতি দেয় সিনেট। আপাতত তাই সরকারি কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার কোনো আশঙ্কা দেখা যাচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন