toronto

ওয়েবডেস্ক: সোমবার দুপুরে কানাডার টরন্টোয় এক উন্মত্ত ভ্যানচালক গাড়ি নিয়ে উঠে পড়ল ফুটপাথে। এক এক করে পিষে মারল ১০ জন নিরীহ পথচারীকে। টরন্টো পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় অন্তত পক্ষে ১৬ জন আহত হয়েছেন। তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে।

পুলিশ সূত্রে খবর, টরন্টোর যে অংশে ঘটনাটি ঘটেছে, তা শহরের বেশ ব্যস্ততম এক পথ। দুপুরে অনেক চাকুরিজীবীরাই সেখানে জড়ো হয়ে খাওয়া-দাওয়া সারছিলেন। এমন সময়ে ফুটপাথ ঘেঁষে আসা একটি সাদা রঙের রাইডার ভ্যান হঠাৎ করেই উঠে আসে ফুটপাথে। তার পর দ্বিধা না করে এক এক করে পিষে মেরে ফেলতে থাকে নিরীহ জনতাকে। এ ভাবে মোট ১০ জনের প্রাণ নিয়েছে সেই ভ্যানচালক। ঘটনায় রীতিমতো আহতও হয়েছেন ১৬ জন।

টরন্টো পুলিশ প্রধান মার্ক সন্ডার্স জানিয়েছেন যে ওই ভ্যানচালককে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। সেই গ্রেফতার করার ভিডিওই ভাইরাল হয়েছে নেটদুনিয়ায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ভ্যানচালকটির দিকে রিভলবার তাক করে তাকে আত্মসমর্পণ করতে বলছে পুলিশ। কিন্তু সে ক্রমাগত ‘আমায় মেরে ফেল’ বলে চিৎকার করে চলেছে। এই অবস্থার মধ্যেই অবশেষে তাকে মাটিতে পেড়ে ফেলছে পুলিশ। সমর্থ হচ্ছে হাতকড়া পরিয়ে দিতে।
এ ছাড়া সেই ভাইরাল ভিডিওয় আহত পথচারীদের হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক করার জন্য পুলিশের চেষ্টা এবং ইতস্তত ছড়িয়ে থাকা মৃতদেহও দেখা যাচ্ছে। তাই ভিডিওটি দেখতে হলে সাইন ইন করে ঢুকতে হবে।

মার্ক সন্ডার্স জানিয়েছেন যে ওই ভ্যানচালকের নাম অ্যালেক মিনাসিয়ান। ২৫ বছরের এই যুবক কী করে, তা পুলিশ জানে না। অপরাধজগতের সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক আছে কি না, সে বিষয়েও নিঃসন্দিগ্ধ নয় পুলিশ। তারা ঘটনাটির তদন্ত করছে। রাইডাডার নামের যে সংস্থা থেকে ওই গাড়িটি ভাড়া করেছিল অ্যালেক, তারাও তদন্তে পুলিশের সঙ্গে সব রকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত পুলিশের দাবি- এই যুবকের সঙ্গে কোনো উগ্রপন্থী দলের যোগ আছে বলে তাদের মনে হয় না।

ঘটনায় গভীর খেদ প্রকাশ করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ত্রুদু। “এর চেয়ে দুঃখজনক আর কিছুই হতে পারে না যে আমায় এ রকম একটা ঘটনার কথা শুনতে এবং জানতে হল! পথে চলাফেরার সময় তো আমাদের এমন আতঙ্কে থাকার কথা নয়”, জানিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here