নোনা জলে বানভাসি ভেনিস, ভয়াবহ বিপদের আশঙ্কায় শহরের প্রাচীন স্থাপত্যগুলি

0

ভেনিস: সমুদ্রের জল অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যাওয়ায় প্লাবিত হয়েছে ইতালির ভেনিস শহরের প্রায় ৭০ শতাংশ এলাকা। সেই জল নামতে শুরু করলেও মহাবিপদের আশঙ্কায় রয়েছে শহরের প্রাচীন স্থাপত্যগুলি।

সপ্তাহখানেক আগে জোয়ারের জল শহরে ঢুকে ভেনিসকে কার্যত তছনছ করে দিয়েছে। এ বার শহরের কাছে ভয়ের কারণ নুন। বন্যার জেরে সমুদ্রের নোনাজল শহরের প্রাচীন ও প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপত্যে ঢুকেছে।

ফলে জল সরে গেলেও বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা নুনের প্রভাব থেকে যাবে, এবং তা ধীরে ধীরে স্থাপত্যগুলিকে নষ্ট করে ফেলবে।

ভেনিসের মেয়র লুইগি ব্রুগনারো বলেছেন, “নোনাজল আমাদের জন্য সব কিছু কঠিন করে দিচ্ছে। নতুন স্রোতে মাত্র তিন দিনে শহরের ৭০ শতাংশ এলাকা তলিয়ে গিয়েছে। এটা গত ৫০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।”

আরও পড়ুন শীতকালীন অধিবেশন শুরুর আগে বিশেষ আবেদন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

ভেনিসের এই ভয়াবহ পরিস্থিতির জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করেছেন বিশেষজ্ঞরা। শহরের মধ্যে দিয়ে বয়ে চলা বিভিন্ন খাল এবং নদীতে সমুদ্রের জল ঢুকেছে ফলে সেগুলি নোনা হয়ে উঠেছে। এখন সাগরে জোয়ারের ফলে এই নদী এবং খালের জলস্ফীতি শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঢুকে গিয়েছে। সেই সঙ্গে ঢুকেছে নুনও।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্থাপত্যগুলির ইটগুলি যে পদার্থ দিয়ে জোড়া লাগানো হয়েছে, বন্যার জলে মিশে থাকা নুন সেই পদার্থকে খেয়ে ফেলবে। ফলে ধীরে ধীরে ভেঙে পড়বে ইটগুলি।

এর ফলে সব থেকে ভয়াবহ অবস্থা হতে পারে শহরের অন্যতম স্থাপত্য, বাইজেন্টাইন সেন্ট মার্ক বাসিলিকা সেন্টার। প্রাচীন মার্বেলে তৈরি এর কলামগুলো ভঙ্গুর প্রকৃতির। ফলে নোনা জল এটিকে ধ্বংস করে দিতে পারে।

এ ছাড়া ভেনিসের প্রাচীন গির্জা নাভেতেও নোনা জল ঢুকেছে। যে সব কলামের ওপর গির্জাটি দাঁড়িয়ে রয়েছে বন্যার জল সেখানেও নুন ঢুকিয়ে দিচ্ছে।

সম্প্রতি জোয়ারের জল বেড়ে যাওয়ায় বানভাসি হয়েছে বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন নগরী ভেনিস। গত বৃহস্পতিবার শহরে জরুরি অবস্থা জারি করেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্তে। বন্যার ক্ষয়ক্ষতি ঠেকাতে এখনও পর্যন্ত কুড়ি মিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ করেছেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.