indonesia

ওয়েবডেস্ক: বিষধর সাপের মাথা কেটে তার রক্ত ঢেলে দেওয়া হল একে অপরের হাঁ করে থাকা মুখে। জ্বলন্ত আগুনে ছুঁড়ে ফেলা হল নিজেদেরই। গড়াগড়ি দেওয়া হল কাচের টুকরো, পেরেকের উপরে। মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম মাতিসের উপস্থিতিতে এ ভাবেই নিজেদের দক্ষতা প্রমাণ করতে চাইল ইন্দোনেশিয়ার সেনাবাহিনী।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি মাতিস পৌঁছেছেন ইন্দোনেশিয়ায়। কোনো দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অন্য দেশে হাজির হলে তাঁর সম্মানার্থে তো বটেই, পাশাপাশি নিজেদের দক্ষতা প্রমাণ করার জন্যও অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকে সেই দেশ। কিন্তু ইন্দোনেশিয়া যা করল মঙ্গলবার, তা পিছনে ফেলে দিল এযাবত ঘটে থাকা সব কিছুকেই।

জানা গিয়েছে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে সন্তুষ্ট করার জন্য মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত আয়োজনে অভিজাত বংশের সেনারা এক ভয়ানক প্রদর্শনীর আয়োজন করে। জোরে জোরে বাজতে থাকা ড্রামের সঙ্গে কালো রঙে মুখ রাঙিয়ে সেনারা একে একে তুলে ধরতে থাকেন তাঁদের বীরত্ব এবং অসমসাহসিকতার নমুনা।

সেই নমুনায় প্রদর্শিত হয়েছে জ্বলন্ত আগুনে নিজেদের ছুঁড়ে ফেলার দৃশ্য। দেখা গিয়েছে পেলেট বন্দুক দিয়ে পরস্পরকে গুলি করার ঘটনাও। কাচের উপর দিয়ে গড়াগড়ি খাওয়া, সোজা করে রাখা পেরেকের উপর দিয়ে খালি গায়ে হাঁটা- বাদ যায়নি কোনো কিছুই!

তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে বস্তাবন্দী জীবন্ত বিষধর সাপ এনে তাদের মাথা কেটে রক্ত খাওয়ার ঘটনা। স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে ভিডিওয়- বস্তা থেকে অজস্র সাপ কিলবিল করে বেরিয়ে পড়তেই একে একে তাদের খালি হাতে তুলে নিলেন সেনারা। তার পর মাথা কেটে সেই সব সাপের রক্ত যেমন নিজেরা পান করলেন, তেমনই ঢেলে দিলেন সতীর্থদের মুখেও। কেউ বা বীরত্বের আতিশয্যে দাঁতে করে সাপের মাথা ছিঁড়ছেন- ধরা দিল এ হেন দৃশ্যও!

বাদ গেল না হেলিকপ্টার থেকে ঘাড়ের উপর হিংস্র কুকুর ফেলে দেওয়ার ঘটনাও! এই সব কিছু মিলিয়ে তারা যে কতটা দুর্ধর্ষ, তা-ই যেন প্রমাণ করতে চাইল ইন্দোনেশিয়ার সেনাবাহিনী। তা, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ সব কতটা উপভোগ করলেন?

ভিডিও ফুটেজ যা বলছে, তার নিরিখে ধরে নেওয়াই যায় যে তিনি বেশ সন্তুষ্ট! অবশ্য ‘ম্যাড ডগ’ ডাকনামে যাঁকে চেনে দুনিয়া, তাঁর কি এ ধরনের বীরত্বের নমুনায় সন্তুষ্ট হওয়ারই কথা নয়?

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন