busaccident

বেজিং: গন্তব্যে নামতে না পেরে বাসচালকের সঙ্গে বচসা আর তার জেরে ১৫ জনের প্রাণহানি। ঘটনা চিনের চিংকিং প্রদেশের। বাসটি সেখানকার একটি সেতুর ওপর থেকে ইয়াংসে নদীতে পড়ে যায়। পুরো ঘটনাটি জানা গিয়েছে পুলিশের প্রকাশ করা একটি ভিডিও থেকে। এই ভিডিওটি মোট আট সেকেন্ডের। এটি প্রকাশ করা হয়েছে ইউবো সোশ্যাল মিডিয়ায়। চিনের বেশির ভাগ যাত্রীবাহী বাসেই নজরদারি ক্যামেরা আছে। ওই বাসের ভেতরের একটি নজরদারি ক্যামেরায় গোটা ঘটনাটি ধরা পড়েছিল। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৩টি দেহ উদ্ধার করা গিয়েছে। দু’টি দেহ তখনও নিঁখোজ। বাসটিকেও জল থেকে তোলা হয়েছে।

ওয়ানঝউ প্রদেশের পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ভিডিওতে দেখা গিয়েছে বছর ৪৮-এর এক মহিলা চালককে নামিয়ে দেওয়ার জন্য বলছেন। কারণ তিনি তাঁর গন্তব্যে নামতে পারেননি। কিন্তু চালক সামনে কোনো বাসস্টপ না থাকায় নামাতে পারছিলেন না ওই যাত্রীকে। কিন্তু ওই মহিলা ক্রমশ রেগে যাচ্ছিলেন। এক সময় মোবাইল ফোন দিয়ে চালকের মাথায় আঘাতও করেন তিনি। এই কথা কাটাকাটি চলার সময় চালক বেশ কয়েকবার ডান হাতের স্টিয়ারিং ছেড়ে পেছন ফিরে তর্কও করেছেন। এর পর মহিলা দ্বিতীয়বার চালককে আঘাত করতে গেলে চালক মহিলার হাত চেপে ধরেন। এই মতাবস্থায় ঘটে যায় দুর্ঘটনাটি। নিয়ন্ত্রণ হারায় বাস।

পুলিশ আরও একটি ভিডিও প্রকাশ করে। তার থেকে জানা যায় পরের ঘটনা। সামনে দিক থেকে আসা একটি গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লাগে বাসটির। আর সেতুর ধারের রেলিং ভেঙে ইয়াংসে নদীর জলে পড়ে যায় বাস। প্রসঙ্গত, ইয়াংসে হল বিশ্বের তৃতীয় দীর্ঘতম নদী।

৩৬টি বাঙালি সংগঠনের ডাকা অসম বন্‌ধে মিশ্র প্রভাব, আটক কংগ্রেস বিধায়ক

পুলিশ জানিয়েছে যাত্রী আর চালকের এই জাতীয় আচরণ জনগণের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে ভয়ঙ্কর ব্যাপার। সঙ্গে আইন বিরুদ্ধও।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here